মোস্তাফিজ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বিশ্বের প্রথম বোলার হিসাবে রেকর্ড গড়লেন

21

মোঃ এমদাদুল হক,স্টাফ রিপোর্টারঃ

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে হার দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করলেও নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে এসে ওমানকে হারিয়ে বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলার আশা বাঁচিয়ে রাখলো বাংলাদেশ। বাঁচা-মরার ম্যাচে ওমানকে ২৬ রানে হারিয়েছে টাইগাররা।

বাংলাদেশের এই জয়ে বল হাতে দারুণ ভুমিকা পালন করেন মোস্তাফিজ। সেই সাথে প্রথম বোলার হিসেবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে গড়েছেন দারুণ এক রেকর্ড।

মাস্কাটে টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে ১৫৩ রান তোলে বাংলাদেশ। রান তাড়ায় নেমে তাসকিন আহমেদের প্রথম ওভারে ১২ রান তুলে ফেলে ওমান। দ্বিতীয় ওভারে শুরুতেই বিপদজনক আকিব ইলিয়াসকে ফেরান মোস্তাফিজ। তবে ৫ ওয়াইডে ১১ বলের ওই ওভারেও আসে আরও ১২ রান।

এরপরই কাশ্যপ প্রজাপতির সঙ্গে জুটি গড়ার চেষ্টা করেন জাতিন্দর। ৫.৪ ওভারে আউট হওয়ার আগে দলীয় রান ৪৭ করে যান কাশ্যপ। এরপর বাংলাদেশ শিবিরে প্রায় ভয় ধরিয়ে দিচ্ছিলেন জাতিন্দর সিং। দলীয় ৯০ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৪০ রান করে আউট হন তিনি। ক্রমশ ভয়ঙ্কর হতে থাকা এই ক্রিকেটারকে ফেরান সাকিব আল হাসান।

পরে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট পড়তে থাকে। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটের বিনিময়ে ১২৭ রানে থেমে যায় ওমানের ইনিংস। ফলে ২৬ রানের জয় পেয়েছে বাংলাদেশ।
এদিন টাইগারদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট শিকার করেছেন মুস্তাফিজুর রহমান। এরই সাথে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম বোলার হিসেবে টানা পাঁচ ম্যাচে ২ বা এর বেশি উইকেট নেওয়ার রেকর্ড গড়েন মোস্তাফিজ। এই রেকর্ডটি মোস্তাফিজ শুধু এই বিশ্বকাপ নয় ২০১৬ বিশ্বকাপ সহ গড়েছেন।

এবারের বিশ্বকাপে ওমান, স্কটল্যান্ড ও আগের বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ড, ভারত এবং অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২ বা তার বেশি উইকেট নেন ফিজ। এছাড়াও সাকিবের পর বিশ্বের দ্বিতীয় বাহাতি বোলার হিসেবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ২ বার ৪+ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড গড়েছেন ফিজ।
একনজরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে মোস্তাফিজের সবশেষ পাঁচ ম্যাচের বোলিং ফিগারঃ
২-৩০, বনাম অস্ট্রেলিয়া, ২০১৬
২-৩৪, বনাম ভারত, ২০১৬
৫-২২, বনাম নিউজিল্যান্ড, ২০১৬
২-৩২, বনাম স্কটল্যান্ড, ২০২১
৪-৩৬, বনাম ওমান, ২০২১

নিউজটি শেয়ার করুন...