ব্লু মুন দেখা যেতে পারে ২২ শে আগস্ট।

0

মোঃএমদাদুল হক, স্টাফ রিপোর্টারঃ

কোন বছরের একই মাসে দু’বার পূর্ণিমার চাঁদ দেখা গেলে দ্বিতীয় পূর্ণিমার চাঁদকে বলা হয় ব্লু-মুন। নামে ব্লু-মুন বা নীল চাঁদ হলেও নীল রঙের সঙ্গে এ চাঁদের কোনো সম্পর্ক নেই। তবে একই দিন চন্দ্রগ্রহণ হওয়ায় চাঁদ রক্তিম রং ধারণ করে। চন্দ্রগ্রহণের সময় পৃথিবীর ছায়া চাঁদের উপর পড়ে। ফলে ওই সময় চাঁদে লাল বা কমলা রঙের আভা দেখা যায়। সাধারণ ব্লু মুন ২ বছর ৮ মাস পর পর হয়ে থাকে ।

ব্লু মুন সাধারণত একটি সাধারণ ঘটনা নয়। অর্থাৎ, এটি প্রতিমাসে বা প্রতি বছরে দেখা যায় না। মূলত দুই-তিন বছর পরপর ব্লু মুন দেখা সম্ভব হয়। তারপরও সম্ভাবনা সামান্য। লুনার ক্যালেন্ডার অনুযায়ী প্রতি ২৯.৫ দিনে এক চান্দ্র মাস হয় এবং সে হিসেবে আমাদের সাধারণ ক্যালেন্ডারের সাথে এর এক-দুই দিনের পার্থক্য থাকে। তো এই পার্থক্য একসময় এমন একটা অবস্থানে আসে যখন একই মাসে দুটি পূর্ণিমা হয়ে থাকে। মাসের এই দ্বিতীয় পূর্ণিমার চাঁদকেই বলা হয় ব্লু মুন। কথা এখানেই শেষ নয়। কারণ এই হিসাব নিয়েও মতান্তর আছে।

প্রাচীন মত অনুযায়ী, সাধারণত একটি ঋতুতে তিনটি পূর্ণিমা চাঁদ থাকে। কিন্তু লুনার ক্যালেন্ডারের এই অতিরিক্ত পূর্ণিমার সম্ভাব্যতার কারণে কোনো কোনো ঋতুতে চারটি পূর্ণিমা দেখা যায়। এখন চারটি পূর্ণিমা বিশিষ্ট এই ঋতুর তৃতীয় পূর্ণিমার চাঁদটিকে বলা হয় ব্লু মুন।

তবে বেশিরভাগ গবেষকের মতে প্রাচীন মতবাদটিই সঠিক এবং পরবর্তী মতবাদকে প্রাচীন মতবাদের ভুল রুপান্তর হিসেবে মনে করা হয়। যদিও দুই মতবাদই এখন চলছে।

ব্লু মুন নামকরণের দিকে যদি যাওয়া হয় তাহলে দেখা যাবে ‘Once in a blue moon’ শব্দগুচ্ছের সন্ধান পাওয়া যায় প্রায় ৪০০ বছর আগে।

ব্লু মুন যে আসলে নীল না সে ব্যাপারে আমরা নিশ্চিত হতে পারি এবং খুব সূক্ষ্মভাবে বলতে গেলে যে চাঁদকে ব্লু মুন বলা হচ্ছে সেটির বর্ণ মূলত হালকা ধূসর থেকে সাদা বর্ণের হয়ে থাকে। একই মাসে যদি আরেকটি চাঁদ উঠেও থাকে তাতে চাঁদের নিজের বর্ণের পরিবর্তনের সাথে কোনো যোগসূত্র থাকার কথা নেই।

কিন্তু এখানেই কথা শেষ নয়। চাঁদকে নীল দেখা গিয়েছিলো ১৮৮৩ সালের দিকে। যদিও সেটা দেখা সম্ভব হয়েছিলো এক পার্থিব ঘটনার কারণে। ক্র্যাকাটোয়া নামক আগ্নেয়গিরি যখন বিস্ফোরিত হলো তখন র‍্যালে স্ক্যাটারিং তত্ত্ব অনুযায়ী বায়ুমণ্ডলের ধূলিকণা ফিল্টারের মতো কাজ করতে শুরু করলো। এর ফলে অস্তায়মান সূর্য এবং চাঁদকে দেখা যেতে লাগলো সবুজ ও নীল বর্ণের। একইভাবে অন্যান্য প্রাকৃতিক ঘটনা, যেমন দাবানল কিংবা ধূলিঝড়ের কারণেও চাঁদকে নীল দেখা যেতে পারে।

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •