বছরের শেষে পরীমণির বিস্ফোরক মন্তব্য: রাজকে আমার জীবন থেকে ছুটি দিয়ে দিলাম

18

বছরের শেষ দিনের প্রথম প্রহরে (৩১ ডিসেম্বর রাত পৌনে ১টা) এসে স্বামী শরিফুল রাজকে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন চিত্রনায়িকা পরীমণি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে তিনি রাজকে জীবন থেকে ছুটি দেয়ার কথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আমি আজ রাজকে আমার জীবন থেকে ছুটি দিয়ে দিলাম এবং নিজেকেও মুক্ত করলাম একটা অসুস্থ সম্পর্ক থেকে।’

পরীমণি তার ফেসবুক প্রোফাইলে এই ঘোষণার আগে সবাইকে বছরের শেষ দিনের শুভেচ্ছা জানান। জানান- হ্যাপি থার্টিফার্স্ট এভরিওয়ান! এরপরই রাজকে নিজের জীবন থেকে ছুটি দেয়ার ঘোষণাটি দেন।

শেষে বলেন, জীবনে সুস্থ হয়ে বেঁচে থাকার থেকে জরুরি আর কিছুই নেই।

এর আগে, বোটক্লাব ইস্যুসহ নানা ঘটনাপ্রবাহে কারাগারেও যেতে হয়েছিল ঢাকাই চলচ্চিত্রের এই নায়িকাকে। এরপর বিয়ে করেন নবাগত নায়ক রাজকে। গিয়াসউদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘গুণিন’ চলচ্চিত্রের শ্যুটিংয়ে প্রেমের সম্পর্কে জড়ান তারা। ভালোই চলছিল রোমান্টিক দম্পতি রাজ-পরীর সংসার। ঘর আলো করে আসে সন্তান। ছেলেকে নিয়ে সুখেই দিন কাটছিল তাদের, এমন ধারণাই ছিল সবার। তবে হঠাৎ পরীর এক স্ট্যাটাসে আলোচনায় উঠে আসে তাদের দাম্পত্য কলহ।

গত ৯ নভেম্বর দেয়া এক ফেসবুক পোস্টে চলচ্চিত্র নির্মাতা রায়হান রাফির উদ্দেশে পরী লিখেন, রায়হান রাফি সিনেমার সাথে সাথে দালালিটাও ভালো করেন দেখি! এরপরের লাইনে ক্ষোভ ঝাড়েন জনপ্রিয় নায়িকা বিদ্যা সিনহা মিমের ওপর। মিমের উদ্দেশে পরী লিখেন, ‘নিজের জামাইকে নিয়েই সন্তষ্ট থাকা উচিত ছিল।

আর সর্বশেষ লাইনটা স্বামী শরিফুল রাজের উদ্দেশে লেখেন পরী। তিনি লেখেন, এটা এতোদূর গড়াতে দেয়া উচিত হয়নি তোমার।

এরপর শোবিজ অঙ্গনে বিতর্কের ঝড় উঠলে গত ১১ নভেম্বর আরেকটি ফেসবুক স্ট্যাটাসে বর্তমান সময়ের ব্যবসাসফল নায়িকা বিদ্যা সিনহা মিমের সাথে রাজকে জড়িয়ে নানা অভিযোগ আনেন পরী। বলেন, এখন তোমাদের (রাজ-মিম) ব্যবসায়িক ছুতোয় আলাপ চলে রাত দিন। আমি একা সারারাত বাচ্চাটাকে সামলাই।

পরীমণি সেসময় আরও বলেন, আসেন তা হলে কিছু বিষয় ক্লিয়ার করি। এই যে মিম বললো- আমি জেলাসি করলাম তোমার সঙ্গে! এটা ১০ জন আননোন লোকে বলতেই পারে; কিন্তু তুমি কী করে এটি বলো? যেখানে পরাণ রিলিজের পর সবখানে আমি বলে আসছি- রাজের সঙ্গে তুমি জুটি হয়ে কাজ করো। তোমাদের জুটি দেখতে ভালো লাগে। এটি তোমরাও চাও। তোমার মাও সেদিন আমাদের লিভিংরুমে আমার সঙ্গে এ নিয়ে কতো কথা বললেন। এই তো সেদিন ইনফিনিটি সিজন-২ এর জন্য তোমাকে নক দিলাম আমি। কী করে ভুলে গেলিরে ভাই।

৫ দিন আগেও আবু রায়হান জুয়েল ভাইকে বললাম- রাজ আর মিমকে জুটি করে নেক্সট কাজটা করে ফেলেন ভাই।

মিমের উদ্দেশে পরীমণি লেখেন, কিন্তু বিশ্বাস কর ভাই মিম, রাজের সঙ্গে তোর এই অতি মাখামাখিটা আমার সংসার, আমার বাচ্চা, আমার লাইফ- সব কিছুতে ঝামেলা করে দিচ্ছে। এই যে দামালের তিন মাসের হলো রাইটস নিলা রাজ তুমি, তোমরা সবাই- এই হলো কাল এখন আমার জীবনের। এখন তোমাদের ব্যবসায়িক ছুতোয় আলাপ চলে রাত-দিন। বিশ্বাস করো তোমাদের এই মাঝ রাতের ফোনালাপ আমার সত্যিই সমস্যা করে। আমি একা সারারাত বাচ্চাটাকে সামলাই। এসব বন্ধ করো।