সকল দুর্যোগ মোকাবিলায় স্বেচ্ছাসেবকরা আমাদের প্রাণশক্তি:দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী

6

নিজস্ব প্রতিবেদক,ঢাকা

ফায়ার সপ্তাহের ভলান্টিয়ার সমাবেশে দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী স্বেচ্ছাসেবকরা আমাদের প্রাণ শক্তি।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান এমপি বলেছেন, সকল দুর্যোগ মোকাবিলায় স্বেচ্ছাসেবকরা আমাদের প্রাণশক্তি।

বুধবার ১৬ নভেম্বর ঢাকার মিরপুরে ফায়ার সার্ভিস ট্রেনিং কমপ্লেক্সে সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত ভলান্টিয়ার সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে তিনি একথা বলেন। ফায়ার সার্ভিস সপ্তাহ ২০২২ উদযাপনের ২য় দিন আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সম্মানিত অতিরিক্ত সচিব শাহানারা খাতুন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাইন উদ্দিন, বিএসপি (বার), এনডিসি, পিএসসি, জি, এম ফিল।
সকাল সাড়ে ৯টায় বিভিন্ন স্থান থেকে আসা ভলান্টিয়ারদের রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়। এরপর ভলান্টিয়ারদের অংশগ্রহণে অগ্নিনির্বাপণ, উদ্ধার ও প্রাথমিক চিকিৎসা বিষয়ক মহড়া অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান অনুষ্ঠানে উপস্থিত হলে সিনিয়র স্টেশন অফিসার নাজিম উদ্দিনের নেতৃত্বে ভলান্টিয়াররা তাঁকে গার্ড অব অনার প্রদান করেন। অভিবাদন গ্রহণ করে প্রতিমন্ত্রী মহড়া কার্যক্রম প্রত্যক্ষ করেন।
মহড়া শেষে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি, সম্মানিত বিশেষ অতিথি ও সভাপতি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অভিবাদন মঞ্চ থেকে অনুষ্ঠান মঞ্চে গমন করেন।


আলোচনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব শাহানারা খাতুন ফায়ার সপ্তাহ প্রতিপালনের শুভ উদ্বোধনের দিন প্রধানমন্ত্রী যেসব অনুশাসন দিয়েছেন তার উল্লেখ করে এসব অনুশাসন প্রতিপালনে সবার আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি ভলান্টিয়ারদের কার্যক্রমের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।
এরপর অগ্নিনির্বাপণ অপারেশনাল কার্যক্রমে সহযোগিতার স্বীকৃতি হিসাবে ৫ জন ভলান্টিয়ারের হাতে স্বীকৃতি সনদ তুলে দেন অনুষ্ঠানের মাননীয় প্রধান অতিথি।
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী প্রধান অতিথির ভাষণে বলেন, বর্তমান সরকার ফায়ার সার্ভিসের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে সকল ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ফায়ার সার্ভিসকে হৃদয় থেকে ধারণ করেন। ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দুর্ঘটনা দুর্যোগে প্রশংসনীয় ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন বলে তিনি মতামত ব্যক্ত করেন। ভলান্টিয়ারদেরকে তাদের কাজের জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে প্রধান অতিথি বলেন, বাংলাদেশ দুর্যোগ মোকাবেলায় বিশ্বের রোল মডেল হতে পেরেছে আমাদের প্রিয় ভলান্টিয়ারদের জন্য। তিনি বলেন, ভলান্টিয়াররা হলেন আমাদের প্রাণশক্তি।
এরপর অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রধান অতিথির হাতে ফায়ার সার্ভিস এর পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা স্মারক হিসেবে ক্রেস্ট তুলে দেন।
সভাপতির বক্তব্যে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাঈন উদ্দিন, বিএসপি (বার), এনডিসি, পিএসসি, জি, এম ফিল বলেন, আমরা সরকার এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে গভীরভাবে কৃতজ্ঞ। আমরা ফায়ার সার্ভিসের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে বিশ্বের সবচেয়ে আধুনিক ও প্রযুক্তি সমৃদ্ধ সরঞ্জাম দেওয়ার জন্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এবং প্রতিমন্ত্রীকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।

পরে ফিতা কেটে যান্ত্রিক শোভাযাত্রার শুভ উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ডা. এনামুর রহমান এমপি। বিকেলে ‘ভবিষ্যৎ ফায়ারফাইটার’ শিরোনামে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ফায়ার সার্ভিস নারী কল্যাণ সমিতির সভাপতি জনাব রেহানা সুলতানা।

ডিএসকে/দীআই/ নভেম্বর