চলতি বছর রেমিটেন্স ৩০ বিলিয়ন ডলারে পৌছাবে :জামালপুর প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী

14

সাজ্জাদ হোসেন শাহিন মেলান্দহ, জামালপুর : চলতি বছর রেমিটেন্স ৩০ বিলিয়ন ডলারে পৌছাবে- জামালপুরে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ এম.পি প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপি বলেছেন, বিদেশ থেকে জুলাই মাসে দুই বিলিয়ন, আগস্টে দুই বিলিয়ন, সেপ্টেম্বরের ১৫ দিনে এক বিলিয়ন ডলার রেমিটেন্স এসেছে। রেমিটেন্সের প্রবাহের কারণে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ কমেনি। আমদানি বেড়ে গেলে রিজার্ভ কমে যায়, আবার আমদানি কমে গেলে রিজার্ভ বেড়ে যায়। এটা সাময়িক, রিজার্ভ কেন কমছে আর কেন বাড়ছে এটা নিয়ে চিন্তা করার কিছু নেই। আশা করি এ বছর রেমিটেন্স ৩০ বিলিয়ন ডলারে পৌছাবে। বৃহস্পতিবার দুপুরে জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায় কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।তিনি আরও বলেন, দক্ষ হয়ে বিদেশে গেলে রেমিটেন্স আরও বাড়বে। অদক্ষ শ্রমিকের চেয়ে দক্ষ শ্রমিক বেশী আয় করে।মেলান্দহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম মিঞার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন- প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মো. ইমরান আহমদ এম.পি.। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মির্জা আজম এম.পি.।বক্তব্য রাখেন, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন, জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষন ব্যুরো এর মহা পরিচালক শহিদুল আলম এনডিসি, প্রকল্প পরিচালক মো সাইফুল হক চৌধুরী, জেলা প্রশাসক শ্রাবস্তী রায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) জাকির হোসেন। উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ইব্রাহীম খলিলুল্লাহ্ এর সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন- জেলা পরিষদের প্রশাসক ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ফারুক আহমেদ চৌধুরী, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. কামরুজ্জামান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ ও সম্পাদক মো. জিন্নাহ প্রমুখ।উল্লেখ্য, ২২কোটি ৮ লাখ ৮৬ হাজার টাকা ব্যায়ে নির্মিত মেলান্দহ কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটির নির্মান কাজ শেষ হলেও উদ্বোধনের অপেক্ষায় ছিল প্রশিক্ষন কেন্দ্রটি। এই প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে কম্পিউটার, অটোমোবাইল, গার্মেন্টস, ইলেকট্রিক ও ওয়েল্ডিং এন্ড ফেব্রিকেশন ট্রেডে প্রতি বছর মোট ১ হাজার ২ জনকে প্রশিক্ষণ দিয়ে দক্ষ করে গড়ে তোলা হবে।