অনন্তের মিথ্যাচার : ১০০ কোটি নয়, “দিন দ্য ডে” সিনেমার বাজেট ৪ কোটি

22

চিত্রনায়ক-প্রযোজক অনন্ত জলিল বাংলাদেশ-ইরান যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ‘দিন দ্য ডে’ সিনেমার বাজেট ১০০ কোটি টাকার বেশি দাবি করলেও সিনেমাটির প্রকৃত বাজেট ৫ লাখ মার্কিন ডলার। ২০১৮ সালে হওয়া চুক্তি অনুসারে সিনেমাটির বাজেট বাংলাদেশি মুদ্রায় ৪ কোটি টাকার বেশি।
সিনেমাটির সহ-প্রযোজক ও ইরানি পরিচালক মুর্তজা অতাশ জমজম ইনস্টাগ্রামে ‘দিন : দ্য ডে’ সিনেমার চুক্তিপত্র প্রকাশের পর এমন তথ্য জানা গেছে।

পরিচালক এই চুক্তিপত্র প্রকাশের পাশাপাশি অনন্তের বিরুদ্ধে বকেয়া অর্থ পরিশোধ না করা, চিত্রনাট্য ও শুটিং লোকেশন পরিবর্তনসহ একাধিক অভিযোগ এনেছেন।

যদিও পরিচালকের এসব অভিযোগ প্রসঙ্গে অনন্ত জলিল এখনই বিস্তারিত কিছু বলতে চান না।

আজ সোমবার সন্ধ্যায় অনলাইনকে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় অনন্ত জলিল বলেন, ‘সে তো বাংলা লিখতে পারে না। বাংলাদেশ থেকে কেউ তাকে পরিচালনা করছে। তারা চাচ্ছে আমি অনন্ত এই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে না থাকি। আমি পরিচালকের সঙ্গে কথা বলে তারপর বিস্তারিত বলব।’

এর আগে আরেক ইনস্টাগ্রাম পোস্টে নির্মাতা মুর্তজা অতাশ জমজম জানান, ‘দিন : দ্য ডে’ সিনেমা নিয়ে শুরুতে যে চুক্তি ছিল, তার কিছুই রক্ষা করেননি অনন্ত জলিল। এই সিনেমায় মুর্তজার অর্ধেক প্রোডাকশন জলিল নষ্ট করে নিজের মতো করে সিনেমা বানিয়েছেন। নিজেকে এ সিনেমার প্রধান প্রযোজক বলে দাবি তাঁর।

সে সময় অনন্ত জলিল এনটিভি অনলাইনকে বলেছিলেন, ‘ওই চুক্তিই হচ্ছে বাংলাদেশে শুটিংয়ের টাকা আমি দেব। আমি বাংলাদেশে শুটিংয়ের অংশের টাকা দিয়েছি। আমি চার বছর ধরে এ কথাই বলছি যে বাংলাদেশের শুটিংয়ের খরচ আমি বহন করব, বাইরের শুটিংয়ের খরচ ওরা বহন করবে। বাংলাদেশের শুটিংয়ের টাকা তো ও (মুর্তজা) দেয়নি, আমিই দিয়েছি।’

মুর্তজার অভিযোগের জবাবে অনন্ত জলিল আরও বলেছিলেন, ‘বাংলাদেশে শুটিং করল ইরানের ১৯ জন এসে, সিনেমা আমাদের মতো করে হলো কীভাবে? যা-ই হোক, এটা কোন জায়গা থেকে কী হয়েছে আমি জানি না। দেখে নিই আমি আগে এটা। বাংলাদেশে ভালো কিছু করতে গেলে তো দুনিয়ার শত্রু হতে হয়, দেখছি।’

পবিত্র ঈদুল আজহায় মুক্তি পাওয়া সিনেমাটি নির্মাণ করেছেন ইরানি পরিচালক মুর্তজা অতাশ জমজম। বাংলাদেশ ছাড়াও ইরান, তুরস্ক ও আফগানিস্তানে সিনেমাটির শুটিং হয়েছে। ইরানের মুর্তজা অতাশ জমজম এবং বাংলাদেশের প্রযোজক অনন্ত জলিলের ‘এজে’ ব্যানারে নির্মাণ হয়েছে সিনেমাটি। অনন্ত জলিল, বর্ষা ছাড়াও এতে অভিনয় করেছেন ইরান ও লেবাননের অভিনেতারা।