ভাষা দিবসে আ’লীগ-বিএনপি সংঘর্ষে সাংবাদিকসহ আহত -২০

57

রায়পুর প্রতিনিধিঃ লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ২১ ফেব্রুয়ারি ভাষা দিবসের প্রভাতফেরিতে শহীদদের বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে আসার সময় শান্তিপূর্ণভাবে পথযাত্রাকালে বিএনপি নেতাকর্মীদের উপর বর্বরোচিত হামলা চালায় যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক তারেক আজিজ জনি, কলেজ ছাত্রলীগ সাকিল ও নিলয়ের নেতৃত্বে আ’লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের একাধিক নেতাকর্মীরা। ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২২ ইং তারিখ সকাল অনুমান ৮:৩০ মিনিটের সময় প্রথম রায়পুর তাজমহল সিনেমা হলের সামনে এ দ্বিমুখী সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষের বিষয়ে রায়পুর উপজেলার বিএনপির সাবেক মেয়র এবি এম জিলানীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আমরা শান্তিপূর্ণভাবে শহীদ মিনারে গিয়ে শহীদদের প্রতি ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে আসার সময় আ’লীগের একঝাঁক নেতাকর্মী আমাদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়।” এসময় আহত হয়, রায়পুর উপজেলার যুবদলের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান পাটোয়ারী, সুজন, পৌর ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহফুজুর রহমান হৃদয়, ছাত্রদল নেতা শান্ত, কাউসার, রিয়াজ, সোহেল, সুমন, রাজিবসহ অনেক নেতাকর্মী। এছাড়া আরও আহত হয় মুরাদ (২৫), আলাউদ্দীন(২৫), শিমুল হোসেনসহ অনেকেই আহতদের মধ্যে পাঁচজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। সংঘর্ষের সময় দৈনিক বর্তমান দিন পত্রিকার প্রতিনিধি সোহেল আহমদ পেশাদারির দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে মারামারির ভিডিও ফুটেজ ধারণ করতে গেলে তারেক আজিজ জনি ও নিলয়ের নেতৃত্বে তার কর্তব্য কাজে বাঁধা প্রধান করা হয় এবং তাকে মেরে আহত করে ভিডিও ধারণকৃত মোবাইল ফোনটি ছিনিয়ে নিয়ে ভিডিও ফুটেজ ডিলিট করে দেওয়া হয়। পরে বেলা এগারোটার দিকে রায়পুর উপজেলার কর্তব্যরত একাধিক সাংবাদিক আহত সাংবাদিক সোহেল আহমেদসহ সকল আহতদের হাসপাতালে দেখতে যান। সেখানে হাসপাতালের সামনে গিয়ে সাংবাদিকরা দেখেন পূনরায় দু’দলের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলছে। তখন সাংবাদিকরা মারামারির ভিডিও ধারণ করতে গেলে আবারও প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহ বুবুল আলম মিন্টুসহ উপস্থিত সকল সাংবাদিকদের কর্তব্য কাজে বাঁধা দেন আ’লীগ নেতাকর্মীরা। হাসপাতালে রোগীকে দেখতে আসেন ফাতেমা মেডিকেল হলের মালিক আকবর হোসেন। ছাত্রলীগের নিলয় ও সাকিলের নেতৃত্বে তার ব‍্যবহৃত নতুন মটরসাইকেলটিও ভাঙচুর করা হয়। আকবর হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, আমি কোন রাজনৈতিক দলের নয়, তবুও আমার নতুন মটরসাইকেলটি কেন ভাঙচুর করা হল। আমি এর বিচার চাই। পরে পুলিশ আসলে দুগ্রুপের সকল হামলাকারীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আত্মগোপন করেন।
সাংবাদিকের উপর হামলা এবং তাদের কর্তব্যকাজে বাঁধা দেওয়ার বিষয়ে আ’লীগের নব নির্বাচিত রায়পুর উপজেলার সভাপতি কাজি জামশেদ কবীর বাক্কি বিল্লাহ সাংবাদিকদের নিয়ে এক জরুরি মিটিং করে বলেন, সাংবাদিকদের উপর হামলা এটা অনাকাঙ্ক্ষিত খুব শিঘ্রই বসে দোষীদের নিয়ে সমজোতার মাধ্যমে সমাধান করা হবে।