জয়পুরহাট নামকরা কিছু ডায়াগনস্টিকের চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়ে কিছু কথা

20

জয়পুরহাট শহরের বেশির ভাগ ডায়াগনস্টিকে হাড়ের (ভাঙ্গা মচকানো) ডাক্তারগন ২/৩ তলা ছাড়া বসে না বা ডায়াগনস্টিক কতৃপক্ষ বসান না। রেম সিঁড়ি তো নেই ই, জয়পুরহাটের ডায়াগনস্টিকে লিফট তো কল্পনার বাহিরে। তবে আছে খাঁড়া উঁচু ধাপ সিঁড়ি কিন্তু কেন??
হাত,পা ভাঙ্গা রোগী কি বাঁচার জন্য আসবে! সিঁড়ি বেয়ে উঠতে নামতে আধমরা অবস্থা। রোগী বহনে ও নেই কোন কর্মী, রোগীরা কতটা সুচিকিৎসার ও ভালো সার্ভিস পাচ্ছে তা একটা প্রশ্ন রয়ে যায়??
যদি রোগী বহন চেয়ারের এই অবস্থা হয়। যে পা রাখার জায়গাটা ও নাই। তবে হ্যাঁ টাকা কিন্তু কম নেয় না। সেখানে কিন্তুু এক্স-রে করতে ও সর্ব নিম্ন ৫০০ টাকা লাগে। ডাক্তারের ভিজিটি টা নাই বা ধরলাম। তবে! এতো কিছুর পর ও রোগী তাদের কাছেই আসে কারণ রোগীরা অসহায়।