আবারও বদলগাছী উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্স এ মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষুধ সরবরাহের অভিযোগ

53

মোঃ ফারুক হোসেন, বদলগাছী (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ-

নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর বিরুদ্ধে একবছরের শিশু সাফায়েতকে মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষুধ সেবন করতে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত মঙ্গলবার সকালে বদলগাছী উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ তিন টাকা দিয়ে টিকেট করে চাংলা গ্রামের হানিফ উদ্দীন (রাজন) এর স্ত্রী সুলতানা রাজিয়া তার একবছরের ছেলের সর্দি কাশির চিকিৎসার সেবা নিতে গেলে তাকে ২০২০ সালে মেয়াদ উত্তীর্ণ এমোক্সাসিলিন পাউডার ঔষুধ সরবরাহ করা হয়।

বদলগাছী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষুধ প্রদানের ঘটনাই উপজেলাবাসী সংসয় প্রকাশ করছেন। হানিফ উদ্দীন (রাজন) এবং তার স্ত্রী সুলতানা রাজিয়া বলেন, আমাদের একবছরের শিশু ছেলে সাফায়েত এর সর্দি কাশির চিকিৎসার জন্য বদলগাছী হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার আমার ছেলেকে দেখে ঔষুধ লিখে দেয়। আমি সেই সিলিপ স্টোর কিপারের কাছে দিলে আমাদের দুইটি ঔষুধ দিয়েছে এবং বাঁকী ঔষুধ গুলো হাসপাতালে না থাকায় বাহির থেকে ক্রয় করে নিতে পরামর্শ দিয়েছে। ঔষুধ গুলো বাড়িতে নিয়ে ছেলেকে খাওয়ানোর সময় দেখি হাসপাতালের ঔষুধ গুলোর মেয়াদ উত্তীর্ন হয়েছে ২০২০ সালে আর আমাকে ঔষুধ গুলো দিয়েছে ২০২২ সালে।

তিনি আরও বলেন, দুই বছর আগের মেয়াদ উত্তীর্ন ঔষুধ গুলো যদি আমি না দেখে আমার ছেলেকে খাওয়াতাম তাহলে আল্লাহ না করুক আমাদের ছেলের অনেক বড় ক্ষতি হতে পারত।

বদলগাছী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর কর্তৃপক্ষকে মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষুধ প্রদান কারীদের শাস্তির আওতায় আনা-দরকার বলে মনে করেন তিনি।

এ্যাডঃ শাহানূর ইসলাম সৈকত বলেন, গত জানুয়ারি মাসের ১০ তারিখ তিনি তার মাকে বদলগাছী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ করোনার টিকা দেবার জন্য নিয়ে গেলে তার শ্বাসকষ্টের সমস্যা হয়। সমস্যা দেখা দিলে জরুরী বিভাগে নিয়ে গেলে শ্বাসকষ্ট উপশমকারী সালবিউটামল সলিউশন, ২০২১ সালের মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষুধ প্রদান করা হয়। এসময় তিনি হাতে নাতে ধরে ফেলেন এবং তার মাকে চিকিৎসা সেবা থেকে বিরত রাখেন। পরে তিনি তার মাকে অন্যত্র নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করেন।

তবে তিনি আরও বলেন, এই ভাবে ভুল চিকিৎসা সেবা প্রদান করলে সাধারণ লোকজন বদলগাছী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপর আস্থা হারিয়ে ফেলবে এবং সেই সাথে মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ সরবরাহ রোগীর মৃত্যুর কারণ হতে পারে বলেও মনে করেন তিনি।

বদলগাছী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরিবার পরিকল্পনা অফিস কর্মকর্তা ডাক্তার কানিস ফারহানা বলেন, বিষয়টি আমার জানা নাই তবে অফিস সময়ে স্টোরকিপার এবং ঔষুধ প্রদানকারীদের সাথে কথা বলবো এবং স্টোরগুলো পরিদর্শন করে প্রয়োজনে স্টোর কিপারের দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মচারীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিষয়ে নওগাঁ জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ আবু হেনা মো রায়হানুজ্জামান সরকার বলেন, বিষয়টি আমার জানা ছিলো না তবে গতকালকে আমি মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষুধ প্রদান এর বিষয়ে জনতে পারি এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তাকে বিষয়টি তদন্ত করে দেখতে বলেছি। এই বিষয়টির সত্যতা পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে আইন গত ভাবে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে তিনি জানান।