লেখকদের ঘিরে পাঠকদের ভিড়

61

নিজস্ব প্রতিবেদক,ঢাকা

অমর একুশে বইমেলার চতুর্থ দিন। মেলার প্রথম ছুটির দিনে প্রকাশিত হয়েছে এই সময়ের জনপ্রিয় তরুণ লেখক কিঙ্কর আহসানের নীলডুমুর উপন্যাস। লেখকের উপস্থিতিতে অটোগ্রাফসহ বই সংগ্রহ করতে স্টলের সামনে ভীড় করেছেন পাঠকরা।

শুক্রবার বিকেলে বইমেলায় প্রতিটি স্টলের সামনে এমন দৃশ্যের দেখা মিলেছে।

করোনার কারণে নানা অনিশ্চয়তার পরেও মেলার আয়োজনে খুশি লেখক,পাঠক ও প্রকাশকরা।

করোনার বাধা ডিঙিয়ে মেলার দুয়ার খোলায় বাংলা একাডেমিকে ধন্যবাদ জানিয়ে লেখক কিঙ্কর আহসান বলেন, মেলা মানে লেখকের জন্য ঈদ। কারণ যাদের জন্য লিখি সেই পাঠকদের দেখা পাওয়া যায় এই বইমেলায় আসলে। এবারের মেলায় নীলডুমুর নামের একটি সামাজিক উপন্যাস প্রকাশিত হয়েছে। আশা করছি পাঠকরা ভালোবেসে আগলে রাখবেন। পৃথিবী বইয়ের হোক।

জ্ঞানকোষ প্রকাশনীর প্রকাশক ওয়াসি তরফদার বলেন, প্রতি বছরের মত মেলায় অংশ গ্রহণ করে লেখককদের নতুন নতুন বই পাঠকদের হাতে তুলে দেওয়ার চেষ্টা করি। এ বছর করোনার কারণে মেলা আয়োজন নিয়ে নানা অনিশ্চয়তা দেখা দেয়। তারপরও শেষ পর্যন্ত মেলা চালু হওয়ায় আমরা খুশি।

তরুণ প্রকাশক ওয়াসি আরো বলেন,এবছর আমাদের জ্ঞানকোষ প্রকাশনী থেকে একঝাঁক তরুণ লেখকদের বই প্রকাশিত হয়েছে। যারা বিভিন্ন পেশায় থেকেও পাঠকদের জন্য লিখছেন। আশা করছি পাঠকরা আমাদের হতাশ করবেন না। এবারের মেলায় প্রকাশিত কয়েকটি বইয়ের নাম জানতে চাইলে চাইলে ওয়াসি লেখকদের ঘিরে পাঠকদের ভিড়,ভূত এফএম খ্যাত আরজে রাসেলের ১৩ টি কালো জোনাকি,নাহিদ আহসানের বিষাদবাড়ি,আসিব রায়হানের অচেনা অমানিশা,ডেইলি স্টারের শুভাশীষ রায়ের চমকিয়া ও বিজ্ঞানী ভজঘট,রাসেল রায়হানের আরও গভীরে,শাহারিয়ার জাওয়াদের শোইলবালা।

বাংলা একাডেমি সুত্রে জানা গেছে,মেলার চতুর্থ দিন পর্যন্ত নতুন বই প্রকাশিত হয়েছে ২৩৬ টি বই। মেলায় স্বাস্থবিধি মেনে প্রবেশ নিশ্চিত কিরছেন দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা।