জয়পুরহাটে গায়ে আগুন লাগিয়ে এক তরুণীর আত্মহত্যা

26

এস কে মুকুল, জেলা প্রতিনিধিঃ শুক্রবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (শজিমেক) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।তৃষা জয়পুরহাট শহরের খঞ্জনপুর উত্তরপাড়া মহল্লার খোরশেদ আলমের মেয়ে।
জানা গেছে, মাস ছয়েক আগে জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার বাসিন্দা স্বাধীনের সঙ্গে তৃষার বিয়ে হলেও তা টেকেনি।এ অবস্থায় ১৬ ফেব্রুয়ারি (বুধবার) তৃষা কাউকে না জানিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। পরে রাতে বাবা তাকে বকাবকি করলে পরের দিন বৃহস্পতিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে নিজ ঘরের সিটকিনি লাগিয়ে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়।পরিবারের সদস্যরা টের পেয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। শরীরের প্রায় শতভাগ পুড়ে যাওয়ায় দায়িত্বরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করলে শুক্রবার সকালে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।জয়পুরহাট পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাহেদুল আহসান সোহেল জানান, মেয়েটি কিছুটা অস্বাভাবিক ছিল। তার ইচ্ছে মতো এদিক সেদিক ঘোরাফেরা করতো। এ বিষয় নিয়েই বাবা খোরশেদ আলম তাকে একটু বকাঝকা করেন। এতেই সে অভিমানে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।
জয়পুরহাট থানার দায়িত্বরত কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম জানান, এ ঘটনার বিষয়ে এখনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি।