শেরপুরের নৌকা প্রতিকের মানববন্ধনে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া; আহত- ৫

26

এম শাহজাহান মিয়া ঝিনাইগাতী শেরপুর প্রতিনিধিঃ শেরপুরের শ্রীবরদীতে পরাজিত নৌকা প্রতিকের প্রার্থীর মানববন্ধনে বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রার্ধীর সমর্থকদের মধ্যে হামলা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে একজন মুক্তিযোদ্ধাসহ উভয় পক্ষের ৫ জন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ১৭ ফেব্রুয়ারী বৃহস্প্রতিবার সকালে উপজেলার রানিশিমুল ইউনিয়নের ভায়াডাঙ্গা বাজারে। জানা গেছে,পঞ্চম ধাপে গত ২৬ ডিসেম্বর শ্রীবরদী উপজেলার রানিশিমুল ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত নির্বাচনে ৮ হাজার ২শত ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন ঘোড়া প্রতিকের স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ আব্দুল হামিদ সোহাগ। ৪হাজার ৩শত ভোট পেয়েও ৩হাজার ৯শত ভোটের ব্যাবধানে পরাজিত হন তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি নৌকা প্রতিকের প্রার্থী মাসুদ রানা। তবে নির্বাচনের পরদিন ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের বাঘহাতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পরিত্যক্ত অবস্থায় ব্যাগভর্তি শীল যুক্ত ব্যালট পেপার উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনার পর থেকে পরাজিত প্রার্থী মাসুদ রানা ওই ওয়ার্ডের কেন্দ্রে পুনরায় নির্বাচনের দাবি করে নির্বাচন কমিশন বরাবর একটি আবেদন করেছেন। তা বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে আজ ১৭ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার পরাজিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মাসুদ রানা সকাল দশটায় ভায়াডাঙ্গা বাজারে মানববন্ধনের আয়োজন করলে বিজয়ী প্রার্থী আব্দুল হামিদের সমর্থকেরা তাতে বাধা দেয়। এ নিয়ে দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে একজন মুক্তিযোদ্ধাসহ উভয় পক্ষের ৫ জন আহত হয়। খবর পেয়ে শ্রীবরদী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছিল। বিকালে নৌকা প্রতিকের পরাজিত প্রার্থী মাসুদ রানা এক সংবাদ সম্মেলনে ওই ন্যাক্কারজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। তিনি বলেন নির্বাচনে কারচুপির মাধ্যমে তাকে হারানো হয়েছে। তাই ৪নং ওয়ার্ডে পুনরায় সুষ্ঠু নির্বাচনের ধারা ফিরিয়ে আনতে সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহবান জানান। সংবাদ সম্মেলন শেষে ভায়াডাঙ্গা বাজারে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয় ।