দেওয়ানগঞ্জে যমুনার ভাঙনে হুমকির মুখে বাড়িঘর ও স্কুল

0

এস এম খোরশেদ আহম্মেদ দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা সংবাদদাতা: জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ ভারী বর্ষণে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে নদ নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে যমুনা নদীর তীব্র ভাঙ্গন শুরু হয়েছে। যমুনার তীব্র ভাঙ্গনে বিলীন হয়ে যাচ্ছে উপজেলার চুকাইবাড়ী ও চিকাজানী দুটি ইউনিয়নের মানচিত্র। চিকাজানী ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের বড়খাল গ্রামের প্রায় ৯০ ভাগ এলাকা যমুনা নদীর ভাঙ্গনে বিলীন হয়ে গেছে। একটি গুচ্ছগ্রাম , একটি প্রাইমারি স্কুল , একটি ইফতেদায়ী মাদ্রাসা, বড়খাল ঈদগাহ মাঠ, কেন্দ্রীয় কবরস্থান সহ ৬ শত ঘরবাড়ি ১৫০ একর জমি এরইমধ্যে নদীর গর্ভে চলে গেছে। ২ কোটি টাকা ব্যয়ে সদ্য নির্মিত দেলোয়ার হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়, নব নির্মিত ৩ তলা ভবন সহ প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মসজিদ যমুনা নদীর থেকে মাত্র ৬০ ফুট দূরে অবস্থান করছে। যেভাবে নদী ভাঙ্গন শুরু হয়েছে তা কয়েক দিনের ভিতরে নদীর গর্ভে বিলীন হয়ে যাবে। মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর সাবেক সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট দেলোয়ার হোসেনের জন্মস্থান স্মৃতিচিহ্ন রক্ষা করার জোর দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। উপজেলা চেয়ারম্যান সোলায়মান হোসেন বলেন. দুই বছর ধরে যমুনার ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। ভাঙ্গন রোধ করার জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য কাজ করে যাচ্ছেন , পানি উন্নয়ন বোর্ডের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ কে এম আবদুল্লাহ বিন রশিদ জানান, আমি বিষয়টি সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অবহিত করেছি আশাকরি খুব দ্রুত আপৎকালীন জিও ব্যাগ ফেলার কাজ শুরু হবে । এলাকাবাসী দাবি জানিয়েছেন, দ্রুত জিও ব্যাগ ফেলে নদীর শাষন ও নদী রক্ষা বেড়ি বাঁধ করলে তাহলে নদী ভাঙ্গন রক্ষা পাবে বলে মনে করছেন এলাকাবাসী।

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •