ময়মনসিংহে ঈদের জামাআত শেষে করোনার জন্য অশ্রুসিক্ত প্রার্থনা

মোঃ এমদাদুল হক, স্টাফ রিপোর্টার।

ময়মনসিংহ নগরীর আঞ্জুমান ঈদগাহ মসজিদে ঈদুল আজহার প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (২১ জুলাই) সকাল ৮টায় এ জামাতে ইমামতি করেন মুফতি আব্দুল্লাহ আল মামুন। একই স্থানে দ্বিতীয় জামাত সকাল পৌনে ৯টায় এবং শেষ জামাত সাড়ে ৯টায় অনুষ্ঠিত হয়।প্রধান জামাতে অংশ নেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ, বিভাগীয় কমিশনার মো. শফিকুর রেজা বিশ্বাস, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হকসহ বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক নেতারাসহ সর্বস্তরের ধর্মপ্রাণ জনসাধারণ।

এর আগে, নির্ধারিত সময়ের আগেই মুসল্লিরা আঞ্জুমান ঈদগাহ মসজিদে ঈদের প্রথম জামাতে যোগ দিতে আসতে শুরু করেন। এ সময় মসজিদে প্রবেশের দুটি গেটে মুসল্লিদের তল্লাশি করে প্রবেশ করানো হয়।মাস্কছাড়া কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি। অনেক মানুষের উপস্থিতির কারণে দুই তলাবিশিষ্ট মসজিদ ও ঈদগাহ মাঠজুড়ে মুসল্লিরা ঈদের প্রধান জামাত আদায় করেন।নামাজ শেষে খুতবা পেশ করা হয়। এরপর অনুষ্ঠিত হয় দোয়া ও মোনাজাত। মোনাজাতে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনার পাশাপাশি প্রাণঘাতী মহামারি করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে আল্লাহর কাছে অশ্রুসিক্ত প্রার্থনা করেন সবাই। সেইসঙ্গে দেশে করোনা আক্রান্ত ও মৃতদের জন্যও দোয়া করা হয়।এছাড়াও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের নিহত সদস্যদের রুহের মাগফিরাত এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনাও করা হয় মোনাজাতে।এদিকে, নগরীর বড় মসজিদে সকাল সোয়া ৮টায় একমাত্র জামাত, মার্কাজ মসজিদে সকাল ৭টায়, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদে সকাল সাড়ে ৮ টায় ও আকুয়া মড়লবাড়ি মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টা ও ৮টায় দুটি জামাত অনুষ্ঠিত হয়।এছাড়াও জেলার ১৩টি উপজেলায় প্রায় ১১ হাজার মসজিদে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতবারের মতো এবারও করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় চিরাচরিত কোলাকুলি আর করমর্দন ছাড়াই একে অপরের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।