কালিগঞ্জের শিবপদ সরকারের স্ত্রী ও সন্তানদের নামে বেনামে হিসাব বহির্ভুত সম্পত্তি,রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার

0

 

কালিগঞ্জ (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি:   কালিগঞ্জে নামে-বেনামে ভোগ দখলে থাকা সম্পত্তির তথ্য গোপনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অভিযোগের প্রেক্ষিতে কালিগঞ্জ সহকারী কমিশনার ভূমি কার্যালয়ে বিচারাধীন আছে। ঘটনাটি উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নের টোনা গ্রামে শিবপদ সরকার ঘটিয়েছে। সম্পত্তির তথ্য গোপন ও হিসাব বিবরণী বহির্ভূত হওয়ায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভূমি মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুসারে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে আবেদন করেছেন ইউনুস আলী মোড়ল। তিনি উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের হোগলা গ্রামের মৃত ইউসুফ আলী মোড়লের পুত্র। তার স্বাক্ষরিত অভিযোগে জানা গেছে, দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নের টোনা গ্রামের মৃত মাদার চন্দ্র সরকারের পুত্র শিবপদ সরকার, তার স্ত্রী বিশাখা সরকার, তার নাবালক সন্তান মিনতি সরকার,মিরা সরকার, মিনাক্ষী সরকার ও পুত্র মিঠুন সরকারের নামে বেনামে পৃথক ৫টি মৌজায় ৩৯. ১৮৬১ একর জমি আছে। এরমধ্যে চান্দুলিয়া মৌজায় ১৯.১৯.৪৩১৯ একর, বাশদহা মৌজায় ৭৭০০ একর, টোনা মৌজায় ৯৪৪২ একর, তেতুলিয়া মৌজায় ৭৮০০ একর ও কালিকাপুর (বড়) মৌজায় ৭.৩৫০০ একর জমি আছে। এরমধ্যে কালিকাপুর মৌজায় জমি বিক্রেতাদের হিসাব বিবরণী বহির্ভূত বিক্রেতার জন্মের পূর্বেই খরিদা সম্পত্তি। এমনিভাবে তথ্য গোপন ও হিসাব বিবরণীতে দাখিল না করে বে-আইনীভাবে সম্মত্তি ভোগদখলে থাকায় সরকার প্রকৃতপক্ষে রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। একারণেই শীবপদ সরকার সহ তার স্ত্রী, কন্যা ও পুত্রের বাবাদী করে কালিগঞ্জ সহকারী কমিশনার (ভুমি) বরাবর ১৫/০৩/২০২০ তারিখে আবেদন করেন ইউনুস আলী মোড়ল। এদিকে আবেদনের প্রক্ষিতে ইউনিয়ন ভুমি অফিস থেকে যথাযথ প্রতিবেদন দাখিল করেন। ঠিক এমন সময়ে ধুরন্ধর মিঠুন সনকার দুটি মিস কেসের মাধ্যমে পৃথক করার পায়তারা চালাচ্ছে। বাদী ইউনুস আলী মোড়লের দাবী চুড়ান্ত শুনানী এবং রায় না হওয়া পর্যন্ত মিঠুন সরকারের মিস কেস যেনো বন্ধ থাকে।

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •