কুষ্টিয়া জিগজ্যাগ ইটভাটা মালিক সমিতি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি ঘোষণা

8

কে এম শাহীন রেজা, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি।।

কুষ্টিয়া জেলা জিগজ্যাগ ইটভাটা মালিক সমিতি বিলুপ্ত ঘোষণা করে হাজী মোঃ নুরুজ্জামান হাবলু মোল্লাকে সভাপতি ও কুমারখালী উপজেলা চেয়ারম্যান মান্নান খানকে সাধারণ সম্পাদক করে ৪৭ সদস্যের একটি কমিটি ঘোষণা করেন। গত মঙ্গলবার দুপুরে কুষ্টিয়া শহরের চিলিস ফুড পার্কে মালিক সমিতির সকলের উপস্থিতিতে নতুন কমিটির ঘোষণা করেন। 

সেই সাথে ২০১৬ সালে স্থাপিত পূর্বের কমিটি উপস্থিত সকলের সম্মুখে বিগত বছরগুলোর হিসাব-নিকাশ দাখিল শেষে নতুন কমিটির ও ঘোষণা দেন জিগজ্যাগ মালিক সমিতির সকল সদস্য বৃন্দ। উপস্থিত সকল জিগজ্যাগ ভাটা মালিকরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন বর্তমানে জিগজ্যাগ ভাটাতে বিপুল পরিমান কয়লা ব্যবহার করা হয়। বর্তমানে উক্ত কয়লার দাম ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে, যে কারণে বেশি দামে কয়লা ক্রয় করে আমরা ইট বিক্রয় করে লাভবান হতে পারছিনা। 

তারা এটাও বলেন, কুষ্টিয়া জেলাতে প্রায় ২০০ টি ইটভাটা রয়েছে তারমধ্যে ৫০টি জিগজ্যাগ ইটভাটা আর বাকি ১৫০টি ভাটা রয়েছে ড্রাম চিমনির। উক্ত ড্রাম চিমনির ভাটাতে কয়লার পরিবর্তে ব্যবহার করছে কাঠ। যা কিনা সম্পূর্ণ আইন বহির্ভূত ২০১৩ সালের আইনকে উপেক্ষা করে তারা দেশের জীব বৈচিত্র ধ্বংস করে কয়লার পরিবর্তে কাঠ ব্যবহার করে পরিবেশ দূষণ করে ভাটা চালিয়ে যাচ্ছে যার পরিপ্রেক্ষিতে তারা লাভবান হচ্ছেন। অন্যদিকে আমরা অধিক মূল্যে কয়লা ক্রয় করে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি। তারা এটাও বলেন, ড্রাম চিমনিতে কাঠ ব্যবহার নিষিদ্ধ ঘোষনা করে কয়লা ব্যবহার এর আওতায় আনর জন্য স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ নিতে হবে। 

এছাড়াও উক্ত নতুন কমিটিতে সাংগঠনিক সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পেলেন প্রিয়াঙ্কা ব্রিকসের মালিক জাহিদুল ইসলাম লিটু, প্রধান উপদেষ্টা হিসাবে দায়িত্ব পেলেন তামান্না ব্রিকসের মালিক সাইদুর রহমান, ১ নং সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পেলেন মহিদুল ইসলাম রিপন ও ১ নং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পেলেন তুহিন।

দীর্ঘ সময়ের আলোচনা সভা, কমিটি বিলুপ্ত ও নতুন কমিটি গঠন সহ সার্বিক বিষয়টি পরিচালনা করেন ১ নং যুগ্ন সাধারন সম্পাদক তুহিন। পূর্ণাঙ্গ কমিটি পরবর্তীতে মিটিংয়ে পেশ করা হবে বলে নব্য সভাপতি হাবলু মোল্লা প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •