অভয়নগরে মুজিববর্ষের উপহার হিসাবে মাথা গোঁজার ঠাঁই পেল ৮ পরিবার

এইচ এম জুয়েল রানা স্টাফ রিপোর্টার : মুজিববর্ষের উপহার হিসাবে অভয়নগরে ৮টি ভু’মিহীন পরিবারকে ২ শতক জমি সহ আধা পাঁকা বাড়ি নির্মান করে তা হস্তান্তর করলেন প্রধানমন্ত্রী।রোববার সকাল ১১টায় গণভবন থেকে ভার্চুয়্যালে যুক্ত হয়ে সারা দেশে ৫৩ হাজার ৩শত ৪০টি ঘর উদ্ভোধন করেন। এর মধ্যে অভয়নগরে ৮টি পরিবার এ উপহার পেল। এসময়ে প্রধান মন্ত্রীর পক্ষে অভয়নগর উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে ৮টি ঘরের চাবি ও দলিল প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: আমিনুর রহমান।অনুষ্ঠানে অন্যানর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান শাহ্ ফরিদ জাহাঙ্গীর, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) নারায়ন চন্দ্র পাল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান তারু , স্থানীয় সাংবাদিক ও উপজেলা বিভিন্ন পর্য্যায়ের কর্মকর্তা বৃন্দ।ঘর গুলোর অবস্থান হলো শ্রীধরপুর ৩টি, শংকরপাশা ১টি, পুড়াখালী ২টি ও মথুরাপুর গ্রামে ২টি। প্রতিটি ঘর নির্মানে খরচ হয়েছে ১লাখ ৭১হাজার টাকা।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান “ মুজিববর্ষের উপহার হিসাবে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া জমিসহ ৮ টি ঘর নির্মান করে দেয়া হয়েছে। আমরা প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে জমির দলিল ও ঘরের চাবী ভুক্তভোগীদের বুঝিয়ে দিয়েছি। প্রতিবন্ধী আসমা বেগম (৩০)। প্রায় ৫ বৎসর আগে বিয়ে হয়েছে। তার একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকেই শ্রীধরপুর গ্রামে মামা বাড়িতে বসবাস করতেন। তার কোন জমাজমি নাই। আসমা বেগম প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ২ শতক জমি ও ঘর পেয়েছেন। গতকাল রোববার উপজেলাপরিষদের হলরুমে জমির দলিল ও ঘরের চাবি পেয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। এ সময় আসমা বেগম বলেন জীবনে জমি কিনে বাড়ি করবো তা কখনো ভাবতে পারিনি। নওয়াপাড়া শংকরপাশা গ্রামে শারিরীক প্রতিবন্ধী ফারুক মোল্যা (৪২)। শংকরপাশা খেয়াঘাটে নৌকা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন। দীর্ঘদিন বসবাস করতেন ভৈরব নদের চরে। তিনিও জমিসহ ঘর পেয়ে খুশি হয়েছেন বলে জানান।