বালিয়াকান্দিতে পুলিশের অভিযানে ৪টি মোটর সহ গ্রেফতার ২

রাজবাড়ী থেকে সুজন বিষ্ণুঃ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে এক চোরকে গ্রামবাসী আটক করে পুলিশে দেওয়ার পর ৪টি মোটর পাম্পসহ চোরের গডফাদারসহ ২জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো, বালিয়াকান্দি উপজেলার বহরপুর ইউনিয়নের পারকুল গ্রামের শমসের মন্ডলের জামাই গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলার ছোট খারকান্দি গ্রামের দেলোয়ার মিয়ার ছেলে মোঃ ফারুক মিয়া (৩৫), দক্ষিণ বালিয়াকান্দি গ্রামের ইজাম উল্লাহের জামাই ও লুৎফর রহমানের বাড়ীর ভাড়াটিয়া আঃ হাই বিশ্বাসের ছেলে আলতাফ হোসেন বিশ্বাস (৪৩)। তাদেরকে রবিবার সকালে রাজবাড়ী আদালতে পাঠানো হয়েছে।

জানাগেছে, গত ৭ জুলাই দিবাগত রাতে উপজেলার বহরপুর ইউনিয়নের সমসপুর গ্রামের মোঃ সরোয়ার হোসেনের বসতবাড়ীর টিউবয়েলের নিকট পানি তোলার কাজে ব্যবহৃত ১ হর্স পাওয়ারের মোটর চুরি করে নিয়ে যায়। আশপাশের বিভিন্ন বাড়ী থেকেও নিয়মিত মোটর চুরি হয়ে আসছিল। মোটর চুরিতে অতিষ্ঠ হয়ে এলাকার লোকজন অফিসার ইনচার্জ তারিকুজ্জামানের নির্দেশনায় রাতে পাহাড়ার ব্যবস্থা করে। গত ৯ জুলাই রাত সোয়া ১২টার সময় মোঃ খায়রুল খান পাহাড়া দেওয়ার সময় ফারুক মিয়াকে যদুপুর গ্রামের বক্কার মোল্যার বাড়ীর সামনে কাচা রাস্তার উপর দেখতে পেয়ে ডাক দিলে ফারুক মিয়া দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। তখন খায়রুল খানসহ অন্যান্য লোকজন ফারুক মিয়াকে ৭টি হেস্ক ব্লেডসহ আটক করে। আটকের সময় ধস্তা-ধস্তিতে ফারুক মিয়া জখম হয়। ফারুক মিয়া হেস্ক ব্লেড দিয়ে বিভিন্ন বাড়ীর মোটর চুরির কথা স্বীকার করে। তার চুরিকৃত মোটর বালিয়াকান্দি বাজারের আলতাফ বিশ্বাসের নিকট বিক্রি করে আসছিল। আহত হওয়ায় ফারুক মিয়াকে বালিয়াকান্দি হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করাসহ থানা পুলিশকে খবর দেয়। শনিবার সকাল সোয়া ৯টার সময় থানা পুলিশের নিকট ফারুক মিয়া হাসপাতালে ৭টি হেস্ক ব্লেড প্রদান করাসহ চুরিকৃত মোটর আলতাফ বিশ্বাসের নিকট বিক্রির কথা স্বীকার করলে তাকে সাথে নিয়ে আলতাফ বিশ্বাসের চাল-মশলা ভাঙ্গানোর অভিযান পরিচালানা করে চুরিকৃত ২টি মোটরসহ আলতাফ বিশ্বাসকে গ্রেফতার করে।
বালিয়াকান্দি থানার ওসি তারিকুজ্জামান বলেন, স্থানীয় লোকজন ফারুক মিয়া নামে এক মোটর চোরকে আটক করে। পরে থানা পুলিশ তার স্বীকারোক্তিতে ২টি মোটরসহ মোট ৪টি মোটর উদ্ধার করাসহ চোর ও তার গডফাদার আলতাফ বিশ্বাসকে গ্রেফতার করা হয়। তাদেরকে রবিবার সকালে রাজবাড়ী আদালতে পাঠানো হয়েছে।