মুজিববর্ষের ঘর পরিদর্শনে মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রশাসক

মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:মুজিববর্ষের ঘর পরিদর্শনে আসেন মুন্সিগঞ্জ জেলার জেলা প্রশাসক কাজী নাহিদ রসুল।আজ শুক্রবার বিকাল চার ঘটিকার সময় মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া উপজেলায় বড় পাড়া গ্রামে মুজিববর্ষের ঘর পরিদর্শনে আসেন মুন্সিগঞ্জ জেলার জেলা প্রশাসক কাজী নাহিদ রসুল। গত মঙ্গলবার বড় রায় পাড়া গ্রামে নদীর পাড়ে ২৮ টি ঘর নির্মাণ করা হয়েছিল এরমধ্যে একটি ঘর বৃষ্টি জনিত কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয় এর উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় ক্ষতিগ্রস্ত বিষয়টি তুলে ধরেন এরই প্রেক্ষিতে আজ পরিদর্শনে আসেন মুন্সিগঞ্জ জেলার জেলা প্রশাসক। তিনি মুজিব বর্ষের ঘর গুলো পরিদর্শন করেন পরিদর্শনকালে তিনি যারা ঘর পেয়েছেন তাদের সাথে কথা বলেন এবং তাদের খোঁজ খবর নেন। ঘরে থাকতে কোন সমস্যা হয় কিনা তিনি যা তাদের কাছে জানতে চান এতে তারা ঘরে থাকতে কোনো অসুবিধা হচ্ছে না এরকমটা বলেন। তিনি আরো বলেন যে ঘরটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এটা একটা বৃষ্টি জনিত কারণ বৃষ্টির কারণে ভালো চলে গেছে ফলে ঘরটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসন জিয়াউল হক চৌধুরী বলেন আমরা ঘরটি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার খবর শুনে দ্রুত মেরামত করে দিয়েছি। এখানে ২৮টি ঘরের মধ্যে ২৭টি ঘরে ভালো একটি ঘর বৃষ্টি জনিত কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ঘরগুলো নির্মাণের কালে নদীর পাশ দিয়ে সুন্দর একটি প্রাচীর তৈরি করে দেয়া হয়েছে প্রাচিরের পাশে মনে হবে যেন একটি মিনি কক্সবাজার। এর মনোরম দৃশ্য দেখে সবার মন কারে। ঘর ঘরগুলো মনে হয় একটি ছোটখাটো রিসোর্স যদি লকডাউন না থাকতো এখানে অনেক দর্শনার্থী ভিড় করত। এজন্য জেলা প্রশাসক উপজেলা প্রশাসনকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। পরিদর্শনকালে আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা সৈয়দা ইয়াসমিন উপজেলার ওসি রইস উদ্দিন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার সাঈদ মোহাম্মদ লিটন বালুয়াকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শহীদুজ্জামান জুয়েল এটিএন নিউজের সিনিয়র রিপোর্টার মুন্নি সাহা। উপজেলার পিআই ও মোঃতাজুল ইসলাম। বালুয়া কান্দি ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ বিল্লাল হোসেন এবং ৪ নং ওয়ার্ডের মেম্বার মুক্তার হোসেন।জিয়াউল হক চৌধুরী বলেন মুজিববর্ষের ঘর তৈরিতে তিনি সব সময় তৎপর আছেন। ইতিমধ্যে পয়ঃনিষ্কাশনের জন্য ড্রেন তৈরি করার ব্যবস্থা করেছেন তাদের থাকার কোনো অসুবিধা হলে তিনি সাথে সাথে ব্যবস্থা নেবেন।