হরিরামপুরে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে চলছে পিকআপ, অটো বাইক, টেম্পু, ভাড়া ৩ গুণ

1

মোঃ সাইফুল ইসলাম ; মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি: মানিকগঞ্জের হরিরামপুরের উপজেলার আন্ধারমানিক এবং ঝিটকা থেকে ট্রাক, পিকআপ, অটো বাইক, টেম্পু, হ্যালো বাইকে করে তিনগুণ বেশি ভাড়া দিয়ে কর্মক্ষেত্রে ফিরছে গার্মেন্টসকর্মীরা। গণপরিবহন বন্ধ থাকায় পিকআপ, অটো বাইক, হ্যালো বাইক, সিএনজি করে কর্মক্ষেত্রে যেতে দুর্ভোগের শেষ নেই তাদের। উপজেলার চরাঞ্চলের ৩ টি ইউনিয়নের গার্মেন্টসকর্মী ছাড়াও ফরিদপুর জেলার লোকজন ও ট্রলারে করে হরিরামপুর আন্ধারমানিক ও বাহাদুরপুর ঘাটে এসেছে। সেখান থেকে হ্যালোবাইক, টেম্পু অটোতে করে মানিকগঞ্জ, সিংগাইর আবার কেউ তিনগুন ভাড়া বেশি দিয়ে যাচ্ছেন। গার্মেন্টস কর্মীরা জানান, ভাড়া বেশি হলেও কর্মক্ষেত্রে ফিরতে হবে। গার্মেন্টসকর্মীদের জন্য হলেও কিছু পরিবহন ছাড়া উচিত।মানিকনগর এলাকার হানিফ গাজীপুরের টংগীর তাজ প্যাকেজিং এ চাকুরি করেন। এক ঘন্টা ধরে ঝিটকার হরিরামপুর মোড়ে অটো বাইক, হ্যালো বাইক ও টেম্পুর জন্য অপেক্ষা করছেন। ঝিটকা থেকে মানিকগঞ্জ বেউথা এলাকার ভাড়া ৪০ টাকা কিন্তু টেম্পু মালিক চাচ্ছেন জন প্রতি ১৫০ করে। রফিকুল নামের আরেক যাত্রী বলেন, কাল থেকে অফিস খোলা তাই যেতে হচ্ছে। ঝিটকাতে এক ঘন্টা ধরে বসে আছি। অটো, সিএনজি পাচ্ছিনা। দু একটা অটো আসলেও ভাড়া তিনগুণ বেশি।

দেবা নামের ব্যটারি ইঞ্জিন চালিত হ্যালোবাইক চালক বলেন, যাত্রীর অনেক চাপ। হ্যালোবাইকে কম লোক নিয়া যাব তাই ভাড়া বেশি নিচ্ছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, ভাড়া বেশি নেয়ার বিষয়টি আমার জানা নেই। দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছি।

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •