নিকলীতে সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মানছেনা পর্যটকরা, হাওরের পানিতে ডুবে মৃত্যুু ১

নিকলী প্রতিনিধিঃ
চলমান বিশ্বমহামারি কোভিট ১৯ প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব থেকে সুরক্ষিত থাকতে সরকারের দেওয়া স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে কিশোরগঞ্জের নিকলীতে আজ পর্যটকের উপচে পড়া ভীড়। গতকাল পবিত্র ঈদুল আযহার কোরবানি কাজ নিয়ে সকলেই প্রায় ব্যস্ততম সময় কাটিয়ে আজ বৃহঃস্পতিবার ঈদের দ্বিতীয় দিনে নিকলীর হাওরে বিলাসে আশ পাশের উপজেলা ও জেলা থেকে পর্যটকেরা ভীড় করে হাওর বেষ্ঠিত উপজেলা কিশোরগঞ্জের নিকলীতে।

বিভিন্ন এলাকা থেকে ঘুরতে আসা পর্যটকদের সাথে তাল মিলিয়ে ঈদ আনন্দ উপভোগ করতে উপজেলার স্থানীয় উঠতি বয়সী কিশোর,কিশোরী ও যুবকরাও মেতে উঠেছে স্বাস্থ্যবিধি লঙ্গনকারী লীলায়। উপজেলার সড়ক পথে ২০/২৫ জনে একটি গ্রুপ করে একটি খোলা পিকআপ ভ্যান ভাড়া করে সেটিতে স্পিকার বক্স লাগিয়ে থমথমে শব্দে মিউজিক গান চালিয়ে এ্যালোমেলো নাচানাচি করছে এবং এদিক সেদিক ছুটে বেড়াচ্ছে। এ রকম বেশ কয়েকটি পিকআপ ভ্যান সরজমিনে দেখা যায়। সেই সাথে ব্যাটারিচালিত অটো রিক্সায় ৮ থেকে ১০ জনের গ্রুপ এবং বিভাটেকে ৫/৬ জনের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কয়েক শতাধিক গ্রুপ এবং সহস্রাধিক সি এন জি, মাইক্রোবাস , মটর সাইকেল নিকলী বেরিবাধ এলাকায় ছুটাছুটি করতে দেখা যায়।বেশ কয়েকটি পর্যটক বোঝায় বাস ও ঢুকেছে নিকলীর সড়ক পথে। এছাড়াও হাওরের বুকে শতাধিক ছোট ও মাঝারি আকারের নৌকাতে ঈদ উল্লাশে মিউজিকের সুরে চন্দে নেচে গেয়ে মেতে উঠতে দেখা যায়। এমন প্রতিটি নৌকায় রয়েছে ৩০ থেকে ৫০ জনের কিশোর ও উঠতি বয়সী যুবক, কিশোরী ও যুবতীরাও পিচিয়ে নেই এর থেকে। এদের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিন্দুমাত্র রেশ দেখা যাচ্ছে না।

আজ বিকাল প্রায় ৩টার দিকে নরসিংদী জেলার শিবপুর থেকে হাওর ভ্রমনে এসে হাওরের পানিতেই ডুবে প্রাণ গেল রাজিব মিয়া নামে এক যুবকের। জানা যায় নিকলী উপজেলার কুর্শা মোড় এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এলাকাবাসী ও শতীর্থরা ঐ যুবককে পানি থেকে তুলে হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

স্থানীয় প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনী এমন পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমসিম খাচ্ছে।