“প্রশাসন-পুলিশের ভয় দেখাইয়া লাভ নাই:নিক্সন চৌধুরী

1

ফরিদপুর জেলা প্রতিনিধি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ফরিদপুর রাজাকারমুক্ত হয়েছে উল্লেখ করে ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন বলেন, ‘ওই রাজাকার থেকে ফরিদপুরকে মুক্ত করার পর নতুন করে কিছু রাজাকার আর বেইমানের জন্ম হইছে। বড় বড় বেইমান মোস্তাক তৈরি হচ্ছে। তারা ঢাকার বড় বড় নেতাদের দিকে তাকায় থাকে। তারা মনে করে যুবলীগ তাদের চাকর হয়ে থাকবে। যুবলীগের নেতৃত্বে এসব রাজাকার, বেইমান ও খন্দকার মোশতাকদের আমরা প্রতিহত করব।’রোববার জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ফরিদপুর শহরের কবি জসীমউদ্দীন হলে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন বলেন, ‘১৯৭১ সালে বাংলাদেশ পাকিস্তানি হানাদার ও রাজাকারমুক্ত হয়েছে। ওই বড় নেতারা জানেন না যুবলীগ কারও পরোয়া করে না। দালাল বড় নেতাদের বলে যাই, ধমক খাইয়া আপনারা ভয় পাইতে পারেন, কিন্তু যুবলীগ তার পরোয়া করে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রশাসন-পুলিশের ভয় দেখাইয়া লাভ নাই। কেননা ভূতের বাতি নিভা গেছে। বড় নেতারা বাঘ, ভাল্লুক মারে। আমি তো এক বড় নেতার সঙ্গে খেলতে খেলতে হাঁপায় গেছি। বাকি আছে ওই নেতাকে মান্দার গাছে ওঠানো। আরও অনেক বেড় নেতাকে মান্দার গাছে ওঠানো দরকার। এখন নতুন করে ভয় দেখানো হচ্ছে-ভূত আসিতেছে। ভূত আসুক আমরাও প্রস্তুত। এই ফরিদপুরে বরকত-রুবেল-ফোয়াদদের আর রক্ত চুষতে দেয়া হবে না। আমরা দেখায় দেব, এ মাটিতে রাজাকারের কোনো জায়গা নাই। রাজাকারদের চিরতরে এ মাটি থেকে বিতাড়িত করা হবে।’

জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক জিয়াউল হাসানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, ফরিদপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য মনজুর হোসেন।

অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, ফরিদপুর-২ (নগরকান্দা-সালথা) আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর ছেলে ও তার রাজনৈতিক প্রতিনিধি শাহদাব আকবর চৌধুরী প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •