স্বপ্নের দোরগোড়ায় আজমাইন মাতহাব

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

যে বীজ রোপন করা হয় সেই বীজ থেকে চারা অঙ্কুরোদগম হবে এটা যেমন সত্য ঠিক তেমনি আপনি যে স্বপ্ন অন্তরে আঁকবেন সেই স্বপ্ন প্রস্ফুটিত হবে। স্বপ্ন হচ্ছে জীবনের একটা শক্তি। আজমাইন মাহতাব একটি অনন্য নাম। পিতা মোঃমিনটু ছিলেন । যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের বিভিন্ন ত্রুটি-বিচ্যুতি তুলে ধরেছেন বিশ্ব বিবেকের কাছে। তিনি আন্তজার্তিক সংস্থা রয়টাস এ সাংবাদিক হিসেবে কাজ করেছেন ৩৩ বছর। ও মাতা সাহিনা বেগম ছিলেন গৃহিণী।

ছোট্ট ছোট্ট স্বপ্নগুলো প্রদীপ শিখার মতো আলোকিত হয়ে উঠেছে সমাজে। বাবাকে দেখেই আজমাইন মাতহাব সাংবাদিক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন। সাংবাদিকতার উপরেই প্রথমে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। এরপর ২০১৪ সালে প্রথম অনলাইন চ্যালেন আগামীতে যোগদানে শুরু হয় সাংবাদিকতা। ২০১৬ সালে hello bdnews.com এর যোগদান করেন। এখানে আজমাইন মাহতাব শিশুদের নিয়ে কাজ করেন। যাকে বলে ক্ষুদে সাংবাদিক। ক্ষুদে তারকাদের নিয়ে কাজ করেন ২০১৯ সাল পর্যন্ত। ২০১৯ সালের মাঝামাঝি সময়ে তিনি জি বাংলা তে যোগদান করেন। ২০২০ সালে অনলাইন দুর্দান্ত টিভি তে যোগদান করেন।
২০২১ সাল দৈনিক খাসখবরে পত্রিকায় স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে নিজেকে আত্মনিয়োগ করেন।

উপরতলায় উঠতে গেলে যেমন সিঁড়ি বেয়ে বেয়ে উঠতে হয়। তেমনি আজমাইন মাহতাব এর সিঁড়ি হচ্ছেন তার বড় দুলাভাই মোঃ জাহিদ হাসান। ছোট থেকে আজ পর্যন্ত সমস্ত ব্যয় ভার করে আসছেন তিনি। তাঁর সহচার্যে তিনি এ পর্যন্ত এসেছেন।