গুলশানে জুয়েল ওরফে উজ্জ্বল গ্যাংয়ের রমরমা মাদক ব্যবসায় অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

5

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

রাজধানীর গুলশানের ফুটপাত থেকে শুরু করে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে প্রতিদিন চাঁদাবাজি করছে উজ্জল গ্যাংদের সক্রিয় সিন্ডিকেট। গুলশানের বিভিন্ন সেক্টরে ফুটপাত থেকে প্রতিদিন এই সিন্ডিকেট ফিল্মি স্টাইলে চাঁদাবাজি করে আসছে। এ যেন দেখার কেউই নেই। ভুক্তভুগি সাধারন মানুষের অভিযোগ থাকলেও, প্রশাসন নিরব ভূমিকা পালন করছে। সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, চাঁদাবাজ সিন্ডিকেটদের নামে বাড্ডা ও গুলশান থানায় একাধিক জিডি ও অভিযোগ রয়েছে। বাড্ডা থানায় জিডি নং-৯৫২ তারিখ- ১৬/০৭/২০ গুলশান থানায় জিডি নং-৫৭৮ তারিখ ১৪/০৬/২০ গুলশান থানায় জিডি নং-১৯০ তারিখ- ০৫/০৬/২০ গুলশান থানায় জিডি নং-১৯৩ তারিখ ০৫/০৬/২০ গুলশান থানায় জিডি নং-১২৪ তারিখ ০৩/০৬/২০২ গুলশান থানায় জিডি নং-৫০৩ তারিখ- ১০/০৭/২০ গুলশান থানায় অভিযোগ নং- (২২)৯/১৮। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, চাঁদাবাজিতে অর্ন্তভূক্ত আসামী ১) মহারাজ, ২) শহীদ, ৩) সেলিম, ৪) শরীফ, ৫) জুয়েল, ৬) বাবু, ৭) স্বপন আসামীগণ বিভিন্ন সময়ে গুলশানে ফুটপাত থেকে চাঁদাবাজি করে আসছে। তাদের নামে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচার হলেও তাদের বিরুদ্ধে এ পর্যন্ত প্রশাসন কোন ব্যবস্থা গ্রহন করেনি। বর্তমানে সাধারন মানুষের প্রশ্ন কবে মিলবে সুবিচার। সরকার যেখানে মাদকদ্রব্যের বিষয়ে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করছে গুলশান ও বাড্ডা থানা পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না এ নিয়ে জনমনে কৌতুহল দেখা দিয়েছে।

গুলশান থানা যুবলীগ সভাপতি শান্ত ও সাধারণ সম্পাদক হারুন বলেন, আমরা গুলশান এলাকায় কোন মাদক ব্যবসা ও চাঁদাবাজি চায়না। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়তে যুবলীগ বদ্ধপরিকর। অনতিবিলম্বে আসামিদের গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •