নোয়াখালীতে প্রথম আলোর সাংবাদিক কে হত্যার হুমকি’র প্রতিবাদে মানববন্ধন

17

বেলায়েত হোসেন বেলাল নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ জাতীয় পত্রিকা দৈনিক প্রথম আলোর নোয়াখালীর নিজস্ব প্রতিবেদক মাহবুবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার হুমকির প্রতিবাদের পাশাপাশি মুঠোফোনে হুমকিদাতাকে দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন জেলায় কর্মরত সাংবাদিকরা। বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সামনে ওই কর্মসূচি পালিত হয়।মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, মাহবুবুর রহমানকে অজ্ঞাত পরিচয়ে মুঠোফোনে সপরিবারে হত্যার হুমকি দেওয়ার বিষয়টি সাংবাদিক মহলে উদ্বেগের সৃষ্টি করেছে। সাংবাদিকরা সমাজ ও দেশের মানুষের জন্য কাজ করেন, গণমানুষের কথা বলেন। সরকারের উন্নয়ন ও নানা অসঙ্গতি তুলে ধরেন। এতে জীবনের ঝুঁকি আছে জেনেও তারা অপরাধীদের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকেন। কিন্তু বিগত সময়ের সাংবাদিক নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা না নেওয়ার কারণে দেশে সাংবাদিক নির্যাতন বেড়েই চলছে। আর প্রতিনিয়ত নানা নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন দেশের সাংবাদিকরা।এ দিকে, জেলা পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম জানিয়েছেন, ঘটনার পর মুঠোফোনে হুমকিদাতাকে শনাক্ত করার জন্য মাঠে নেমেছে পুলিশ। ইতোমধ্যে আমাদের কাজ অনেকটা এগিয়ে গেছে। খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে আমরা হুমকিদাতাকে গ্রেফতার করতে পারব।চ্যানেল টোয়েন্টিফোর এর জেলা প্রতিনিধি সুমন ভৌমিকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বখতিয়ার শিকদার, আলমগীর ইউছুফ, সাংবাদিক মনিরুজ্জামান চৌধুরী, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওয়াদুদ পিন্টু, সাংবাদিক আবু নাছের মঞ্জু প্রমুখ।এ দিন মানববন্ধনে একাত্মতা প্রকাশ করে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী ছাড়াও বিভিন্ন সংগঠন ও প্রথম আলো বন্ধুসভার সদস্যরা এতে অংশগ্রহণ করেন।উল্লেখ্য, গত বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর ২টা ২মিনিটের দিকে মাহবুবুর রহমানের ব্যবহৃত মুঠোফোনে একটি কল আসে। কলটি রিসিভ করার পর মাহবুব কোনোকিছু বুঝে ওঠার আগেই মুঠোফোনের অপর প্রান্তে থাকা ব্যক্তি অকথ্য ভাষায় গালাগালি শুরু করেন। অজ্ঞাত ব্যক্তি তাকে একরাম (নোয়াখালী-৪ আসনের সাংসদ) বাঁচাবে, দেখব কতদিন বাঁচাতে পারবে বলে হুমকি দিতে থাকেন। এ সময় তিনি জজকোর্টের সামনে অবস্থান করছে দাবি করে তাকে (মাহবুব) ওই স্থানে যেতে বলেন।পরে মাহবুব একাধিকবার হুমকিদাতার নাম-পরিচয় জানতে চাইলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে সপরিবারের তাকে হত্যার হুমকি দেন। এক পর্যায়ে মুঠোফোন সংযোগটি বিচ্ছিন্ন করে দেন হুমকিদাতা।

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •