“বিদায় ” জীবনের অনিবার্য বাস্তবতা !

30

নুরুল আমিন দুলাল ভূঁইয়া নিজস্ব প্রতিবেদক:
তিন অক্ষরের ছোট্ট একটি শব্দ-বিদায়। মাত্র তিন অক্ষর। কিন্তু শব্দটির আপাদমস্তক বিষাদে ভরা। শব্দটা কানে আসতেই মনটা কেন যেন বিষণ্ণ হয়ে ওঠে। এমন কেন হয়? কারণ এই যে,বিদায় হচ্ছে বিচ্ছেদ। আর প্রত্যেক বিচ্ছেদের মাঝেই নিহিত থাকে নীল কষ্ট। বিদায় জীবনে শুধু একবারই নয়, এক জীবনে মানুষকে সম্মুখীন হতে হয় একাধিক বিদায়ের। সে-ই যে জন্ম লগ্ন থেকে বিদায়ের সূচনা, তারপর জীবন পথের বাঁকে বাঁকে আরো কত বিদায় যে অনিবার্য হয়ে আসে…।

মানবশিশু ভুমিষ্ট হয়েই কাঁদতে থাকে। কেন সে কাঁদে? সে তো কাঁদবেই। এতদিন মায়ের নাড়ির সঙ্গে তার যে বন্ধন ছিল সেটি যে আজ ছিন্ন হল। এভাবে জীবনের পরতে পরতে ছিন্ন হয় আরো কত প্রিয় বন্ধন!

তবে এ বিদায়ের বেলায় কষ্টের মাঝেও এক রকম আনন্দ থাকতে পারে যদি সান্তনার সংকট না থাকে। এই সান্তনা কর্ম জীবনে সফলতার সান্ত্বনা।

বিদায়ী কর্মকর্তা যদি পেছনে তাকিয়ে দেখে যে, ফলাফল ভালো নয়, ভালো করে উন্নয়ন মূলক কাজ করা হয়নি, সময়ের মূল্যায়ন করা হয়নি তাহলে তার কষ্টটা হয় সবচে বেশি, সবচে তীব্র। এটি এমন এক সত্য, যা খুবই তিক্ত।
★★হ্যাঁ এতক্ষণ আমাদের রায়পুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাবরীন চৌধুরীর কথাই বলছিলাম। যিনি নিজের কর্মস্পৃহা নিয়ে স্থান করে নিয়েছেন রায়পুরবাসীর হৃদয়। দিনরাত ছুটে চলেছেন রায়পুরবাসির উপজেলার এ প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। তদারকি করেছেন নিজের উপর অর্পিত সরকারি কাজের প্রতি সেক্টরে দায়িত্ব পালন করেছেন স্বচ্ছতার সহিত আন্তরিকতা নিয়ে। সকল বিষয়ে তিনি সফল হয়েছেন, তাই জনমনে তিনি চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন
রায়পুর বাসির হৃদয়ে। করোনার কালিন দূর্যোগে স্বাস্থ্য সেবা, মানুষকে সচেতনতায় অবিরাম বিরতিহীন ভাবে কাজ করেছেন। ক্ষুদার্ত হত দরিদ্রদের পাসে দাঁড়িয়েছে ন খাদ্য সামগ্রী নিয়ে।
আমার যখন ২০২০ সালের আগস্টের মাঝামাঝি করোনার প্রথম ডেউয়ে আমি আক্রান্ত হই তিনি তখন প্রতিনিয়তই আমার খোঁজ খবর নিয়েছেন। এখনো যেখানেই দেখা হয়, সুন্দর হাসি দিয়ে আমায় জিজ্ঞেস করেন কেমন আছেন?

শেষ বিদায় যেহেতু সবচেয়ে কষ্টের, সবচেয়ে বিষাদের তাই জীবনের অন্যান্য বিদায়ের সময় শেষ বিদায়ের কথা স্মরণ করতে হবে। যাতে তখন কোনোরূপ পরিতাপ নিজেকে দগ্ধ না করে অতীত জীবনের কর্মের জন্য। তাহলেই জীবনের খন্ড খন্ড বিদায়গুলো সার্থক হয়ে উঠবে নিশ্চয়। বিদায় জনাব সাবরীন চৌধূরী বিদায়। যেখানেই থাকুন, আপনার উত্তরোত্তর সাফল্য ও সমৃদ্ধি কামনা করি ভালো থাকবেন সবসময় মহান আল্লাহর কাছে এই কামনাই করি। আপনার সার্বিক সুস্থতা কামনায়, আমি সাংবাদিক -নুরুল আমিন ভূঁইয়া দুলাল। সাবেক সভাপতি রায়পুর প্রেসক্লাব। ★★

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •