জাল বুনেই অলস সময় কাটছে লক্ষ্মীপুরের জেলেদের

8

সোহেল হোসেন লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি। 

লক্ষ্মীপুর জেলাতে  সরকারিভাবে ইলিশ ধরা, পরিবহন ও বিক্রিতে ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা চলছে। এ কারণে লক্ষ্মীপুরের নিবন্ধিত ৫২ হাজার জেলে অলস সময় পার করছে। বিকল্প কাজ খুঁজছে অনেকে। দাদন পরিশোধে চিন্তিত তারা। অলস সময় জাল বুনেই কাটছে জেলেদের। অনেকে আবার নৌকা মেরামত করছে। তবে অনিবন্ধিত জেলেরা হতাশায় দিন কাটাচ্ছে। একদিকে সরকারি কোন অনুদান পাচ্ছে না। অন্যদিকে দাদনের টাকা পরিশোধ করতে হিমছিমে পড়তে হবে। এরমধ্যে পরিবারের খরচ বহন করতেই হচ্ছে।

সরোজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, রামগতির চর রমিজ, ও কমলনগরের সাহেবের হাট, নবীনগর ও মতির হাটের হাজার হাজার জেলে নৌকা মেঘনার তীরে রেখে জাল বুনে সময় অলস সময় কাটাচ্ছে।

এদিকে যতদূর চোখ যাচ্ছে নদীতে কোনো মাছ ধরা নৌকা ও ট্রলার দেখা যাচ্ছে না। জেলেরা বর্তমানে তীরে উঠে এসেছেন। তীরে এসেও তাদের কোনো বিরাম নেই। নতুন করে জাল বোনা ও মেরামত করা এবং নৌকা সংস্কার করার কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা।

লক্ষ্মীপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম জানান, লক্ষ্মীপুর সদর, রামগতি, কমলনগর ও রায়পুর উপজেলায় প্রায় ৫২ হাজার নিবন্ধিত জেলে রয়েছে। নিষেধাজ্ঞার এইসময়ে তাদের বেশিরভাগ জেলে চাল পাবে। একসময় ১০ কেজি করে চাল পেত। এখন ২০ কেজি করে ২ কিস্তিতে ৪০ কেজি পায় একেকজন কার্ড ধারী। চাল বিতরণে যেন কোন অনিয়ম না হয় সেজন্য ব্যাপক তদারকি রয়েছে বলে জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •