মিরসরাইয়ে জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন

5

মিরসরাই প্রতিনিধিঃ-

মিরসরাইয়ে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে  রিজিয়া বেগম (৪২) নামে একজনকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

২৮ সেপ্টেম্বর (মঙ্গলবার) দিবাগত রাত সাড়ে নয়টার দিকে উপজেলার ইছাখালী ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের ছুনিমিঝির টেক এলাকার নুরুজ্জমার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রিজিয়া বেগম ঐ বাড়ির জাহাঙ্গীর আলম এর স্ত্রী। উক্ত ঘটনায় অভিযুক্ত নিহতের স্বামী জাহাঙ্গীর আলম (৫৫) কে আটক করা হয়েছে।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মৃত নুরুজ্জমার বাড়িতে চার ছেলে জাহাঙ্গীর আলম, আলমগীর হোসেন, খুরশিদ আলম এবং মোঃ মিলনের  মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছিল। পারিবারিক জায়গার নিষ্পত্তির জন্য কথা বলার উদ্দ্যেশ্যে আলমগীর জাহাঙ্গীরের স্ত্রী রিজিয়া বেগমের কাছে ঢাকায় অবস্থান করা জাহাঙ্গীরের ছেলে  ফারুকুর রশীদ এর মোবাইল নাম্বার নিলে জাহাঙ্গীরের স্ত্রী তার দেবর আলমগীরকে ছেলে ফারুকুর রশীদের মোবাইল নাম্বার দেওয়ার কারণে জাহাঙ্গীর আলম একটি ইলেকট্রিক টর্চ লাইট দিয়ে তার স্ত্রী রিজিয়া বেগমের পিঠে ও ঘাড়ের কাছে বারি দিয়ে আঘাত করে। এতে রিজিয়া বেগম মাটিতে পড়ে বেহুশ হয়ে যায়। রিজিয়া বেগমকে উদ্ধার করার জন্য আলমগীর ও মিলন এগিয়ে গেলে জাহাঙ্গীর টর্চ লাইট দিয়ে তাদেরও মারধর করে। পরে রাত বারোটার দিকে  স্থানীয় লোকজন রিজিয়া বেগমকে উদ্ধার করে মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মস্তান নগর নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।এবিষয়ে জানতে চাইলে ইছাখালী ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রফিক উজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ওই বাড়িতে চার ভাইয়ের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছিল। গতকাল রাতে জাহাঙ্গীরের স্ত্রী রিজিয়া বেগম তার দেবরকে ছেলের মোবাইল নাম্বার দেওয়া নিয়ে স্বামী জাহাঙ্গীর এর টর্চ লাইটের আঘাতে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে বেহুঁশ হলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মস্তান নগর  নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

জোরারগঞ্জ থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থ পরিদর্শন করে এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

বুধবার সকালে নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

জোরারগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত হেলাল উদ্দিন ফারুকী বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে, অভিযুক্ত জাহাঙ্গীরকে পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছ এবং এ বিষয়ে মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন।

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •