প্রতিবন্ধী রবিউল কে হুইল চেয়ার উপহার দিলেন ডা: ফেরদৌস খন্দকার

শাহ সাহিদ উদ্দিন, কুমিল্লা দেবীদ্বার প্রতিনিধি:কুমিল্লা জেলার দেবীদ্বার উপজেলার পৌসভার ছোট আলমপুরে বসবাস রবিউল আওয়ালের।জন্মগত প্রতিবন্ধী রবিউল।সেই সাথে বোবা এবং শ্রবণ প্রতিবন্ধীও । সোজা হয়ে দাঁড়াতে বা চলাচল করতে পারেন না । অন্যের সহায়তা ছাড়া খেতেও পারে না ।রবিউলের চলাচলের জন্য একটি হুইল চেয়ার খুব প্রয়োজন ছিল।দেবীদ্বার নাগরিক টেলিকাস্ট এ রবিউলকে নিয়ে নাগরিক ধ্বনি নামে একটি প্রতিবেদন ফেইসবুকে প্রচার করলে বিষয়টি মোঃ কাউছার হায়দারের নজরে আসে এবং সে দেবীদ্বারের বাকসার গ্রামের সন্তান নিউইয়র্ক প্রবাসী ডাঃ ফেরদৌস খন্দকারের নিকট আবেদন জানানোর পর রবিউলকে নগদ দুই হাজার টাকা ও একটি হুইল চেয়ার উপহার দেয়া হয়।
ডাঃ ফেরদৌস খন্দকার হুইল চেয়ারটি তাকে দিয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন। আজ রোজ শুক্রবার (০৯ জুলাই)বিকালে দেবীদ্বার ড্রিম ডায়াগনস্টিক সেন্টারে প্রতিবন্ধী রবিউলকে কাউছার হায়দারের মাধ্যমে হুইল চেয়ারটি রবিউলের মায়ের হাতে তুলে দেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন ড্রিম ডায়াগনস্টিক সেন্টারের চেয়ারম্যান মোঃ কাউছার হায়দার,ড্রিম ডায়াগনস্টিক সেন্টারের এমডি মোহাম্মদ উল্লাহ ভূইয়া(সোহাগ)পৌর আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীয়া সম্পাদক মোঃ ছাইফুল ইসলাম (বাবু)ড্রিম বয়েজ দেবীদ্বার এর সদস্য মোঃ ফয়েজ মোল্লা,সাংবাদিক সাঈদুজ্জামান সাঈদ,কাঁচাবাজার এর ইজারাদার মোঃ মফিজুল ইসলামসহ আরো অনেকেই।রবিউল আউয়াল জন্মের পর থেকে দুটি পা চিকন হওয়ায় হাটতে পারেন না এমন খবর পাওয়ার পর ডাঃ ফেরদৌস খন্দকার একটি হুইল চেয়ার ও নগদ টাকা তাকে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন।রবিউল পৌরসভার ছোট আলমপুর গ্রামের মনু মিয়ার ছেলে। হুইল চেয়ার পেয়ে কেমন লাগছে জিজ্ঞাসা করতেই হেসে উঠেন রবিউল। তারপর তাকিয়ে দেখেন হুইল চেয়ারটির দিকে। ভালো লাগার পরশ যেন মুহূর্তেই ছুঁয়ে যায় তার চোখেমুখে। প্রতিবন্ধী রবিউলের মা বলেন আমি অনেকের কাছে অনেক বছর থেকে একটি হুইল চেয়ার চেয়েছি আমার ছেলের জন্য, কিন্তু অনেকেই দিবে বলে এখনো দেয় নাই।কিন্তু হঠাৎ করেই ডাক্তার সাহেব না চাইতেই আমার ছেলেকে হুইল চেয়ার ও নগদ টাকা দেয়াতে আমরা খুশি এবং আল্লাহ যেনো তার নেক হায়াত দান করেন।