“আসুন সরকারের পাশাপাশি অসহায় মানুষের জন্য স্ব-স্ব অবস্থান থেকে কাজ করি :সাংবাদিক মুহাম্মদ মহররম হোসাইন

মোঃ কামাল হোসেন, চট্টগ্রামঃ
করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে যখন দেশব্যাপী ভাসমান মানুষের হাহাকার তখন থেকেই সরকারের সহযোগিতার পাশাপাশি চট্টগ্রাম নগরীর ভাসমান জনগোষ্ঠীর মাঝে রান্না করা খাবার নিয়ে ছুটে চলছে মানবিক সংগঠন “মুসাফির”। মুসাফির মানে ভাসমান মানুষদের আহারের ঠিকানা। মুসাফির মানেই রাস্তার পাশে শুয়ে থাকা অসহায়-ভাসমান মানুষদের কাছে রাত-দিন খাবারের থলে নিয়ে ছুটে চলা মানবতার অপর নাম।

জানাযায়, সেই শুরু থেকেই করোনা কালীন সংকটে নিমজ্জিত অসহায় মানুষের মাঝে এ পর্যন্ত প্রায় ৫০ হাজার প্যাকেট রান্না করা খাবার বিতরণ করেছে “মুসাফির”।

মানবিক সংগঠন “মুসাফির” চলমান সহযোগিতার অংশ হিসেবে লকডাউনে অসহায় ভাসমান মানুষদের মাঝে খাবার তুলে দিতে আবারও কাজ করে যাচ্ছে।

গত ৫ দিনের মত কঠোর লকডাউনে লালদীঘি, শাহ আমানত খান রহঃ মজার লেন, বকশির হাট মোড়, আন্দরকিল্লা, চেরাগী পাহাড়, প্রেসক্লাব এলাকা সমূহে ৩ শতাধিক ভাসমান মানুষের মাঝে খাবার তুলে দেয় “মুসাফির”।

এব্যাপারে মুসাফির এর প্রতিষ্ঠাতা ও আহ্বায়ক পীরজাদা সাংবাদিক মুহাম্মদ মহরম হোসাইন এর নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, কথা একটাই “মানুষ মানুষের জন্য”। জীবনের উদ্দেশ্য আমাদের বুঝতে হবে। শুধু নিজে খেয়ে পড়ে বাঁচার নাম জীবন নয়।ভাসমান অসহায় মানুষরাও আমাদের মত মানুষ। তাদের করুণা নয়, ভালোবাসার জন্য আমাদের এ আয়োজন। মহান আল্লাহর দরবারে শোকরিয়া আদায় করছি তাদের মুখে একবেলা খাবার তুলে দিতে পেরে। মানবিক ও সামাজিক সংগঠন “মুসাফির” চেষ্টা করে যাচ্ছে, করোনা কালীন সংকটে নিমজ্জিত ভাসমান মানুষের মাঝে পাশে থাকতে। সামাজিক দায়বদ্ধতায় সরকারের পাশাপাশি আমাদের সকলকে এগিয়ে আসা উচিত। আসুন সরকারের পাশাপাশি অসহায়-ভাসমান মানুষের জন্য স্ব-স্ব অবস্থান থেকে কাজ করি।

গতকাল সোমবার (৫ জুলাই) রাত ৯ টায় ৫ দিনের কঠোর লকডাউনের সময় মানবিক সংগঠন মুসাফিরের উদ্যোগে ভাসমান মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ কালে “মুসাফির” এর প্রতিষ্ঠাতা পীরজাদা সাংবাদিক মুহাম্মদ মহররম হোসাইন উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

খাবার বিতরণকালে আরও উপস্থিত ছিলেন, স্পিকার কাউন্সিল বাংলাদেশের সিইও ও মানবিক সংগঠন মুসাফির এর সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান আহমেদ, কবি ও সাংবাদিক মোঃ কামাল হোসেন, ফটো সাংবাদিক সৌরভ শুভ্র প্রমূখ।