সরাইল অক্সিজেন ব্যাংকের পাশে “ঢাকাস্থ সরাইল থানা সমিতি”

0

উজ্জল মিয়া, সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি।

‘ঢাকাস্থ সরাইল থানা সমিতি’র পক্ষ থেকে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ‘সরাইল অক্সিজেন ব্যাংক’ নামের সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবীদের কাছে অক্সিজেন সিলিন্ডার তুলে দেওয়া হয়। সরাইল মনোয়ারা হাসপাতালের নিচে অস্থায়ী কার্যালয়ে।

ফোন পেলেই করোনা সংক্রমিত রোগীর জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডার ও পালস অক্সিমিটার নিয়ে ছুটে যাচ্ছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার একদল তরুণ।‘সরাইল অক্সিজেন ব্যাংক’ নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ব্যানারে তাঁরা এই সেবা দিচ্ছেন।
গত ১২ দিনে ৯ জন করোনা রোগীর বাড়িতে বিনা মূল্যে ১৫টি অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দিয়েছেন তাঁরা।
এদিকে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা সদরের বড্ডাপাড়া এলাকায় ‘ঢাকাস্থ সরাইল থানা সমিতি’র পক্ষ থেকে সংগঠনটিকে ১৫টি অক্সিজেন সিলিন্ডার দেওয়া হয়েছে।

এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির উপদেষ্টা সাবেক সাংসদ জিয়াউল হক মৃধা, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহজাহান, কার্যকরী সভাপতি মোহাম্মদ নূর মিয়া, সরাইল সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মৃধা আহমাদুল কামাল, সরাইল প্রেসক্লাবের সভাপতি আইয়ুব খান প্রমুখ।

সংগঠনটি প্রতিষ্ঠাতাদের অন্যতম উদ্যোক্তা হলেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বেলায়েত হোসেন মিল্লাত, ‘হৃদয়ে সরাইল সংগঠন’-এর সভাপতি ফয়সাল আহমেদ মৃধা দুলাল, হৃদয়ে সরাইল সংগঠন এর সাংগঠনিক সম্পাদক কামাল উদ্দিন সজল, পারভেজ আলম, কাজী আবিদুল্লাহ বাপ্পী, জহিরুল ইসলাম, শরীফ বক্স ও বেলাল হোসেন।

সরাইল অক্সিজেন ব্যাংক সম্পর্কে বেলায়েত হোসেন বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন মিডিয়ার মাধ্যমে দেখেছি অক্সিজেনের অভাবে অনেক জায়গায় করোনা রোগী মারা যাচ্ছেন।
এই মুহূর্তে অক্সিজেনের সংকটও চলছে। এ জন্যই আমরা কয়েক জন মিলে এ উদ্যোগ নিয়েছি। প্রথমে আমরা মূলত শুরুটা করেছিলাম নিজেদের অর্থে। এখন আমাদের পাশে অনেকেই দাঁড়িয়েছেন।

ফয়সাল আহমেদ মৃধা দুলাল বলেন, যে রোগীর অক্সিজেন প্রয়োজন আছে বলে চিকিৎসক পরামর্শ দেন, কেবল তাঁদেরই অক্সিজেন সেবা দিয়ে থাকেন। একজন রোগীর যত দিন অক্সিজেন প্রয়োজন হবে, তত দিন পর্যন্ত তাঁকে এই সেবা দেওয়া হবে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা নোমান মিয়া বলেন, সরাইলে প্রতিদিন করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। তাঁদের মধ্যে অনেকেরই অক্সিজেনের প্রয়োজন হচ্ছে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলো এসব রোগীর পাশে দাঁড়ালে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর চাপ কমবে। তবে অক্সিজেন ব্যবহার করতে সঠিক নিয়ম মানা প্রয়োজন।

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •