বাঞ্ছারামপুরে ৪১ টি পূজা মন্ডপে চলছে শারদীয় দুর্গা  উৎসব

33

মো.নাছির উদ্দিন, বাঞ্ছারামপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া,প্রতিনিধিঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় ৪১টি পূজা মন্ডপে অনুষ্ঠিত হচ্ছে সনাতন ধর্মলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। মন্ডপে মন্ডপে চলছে আনন্দ উৎসব। 

আজ ১১ অক্টোবর মহাষষ্ঠীতে দেবী দুর্গার বোধন, আমন্ত্রণ ও অধিবাসের মধ্যদিয়ে শুরু হচ্ছে  দেবী পূজার আনুষ্ঠানিকতা। ১৫ অক্টোবর শেষ হবে, ৫দিন ব্যাপী চলবে। এদিকে দূর্গা পূজায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে বিরাজ করছে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কাছে দেবীদুর্গা শক্তি ও সুন্দরের প্রতীক। প্রতি বছর অশ্বরের বিনাশ কল্পে মা দেবী দূর্গা এই ধরাধামে আবির্ভুত হয়। তাই সনাতন ধর্মাবলম্বীরা মনে করেন সমাজ থেকে অন্যায় অবিচার গ্লানি দূর করার জন্যই এই পূজার আয়োজন।

এবছর দেবী দুর্গা আসছেন ঘোড়ায় চড়ে যাবেন দোলায় চড়ে। দেবীর আগমনে বিশ্ব হবে শান্তিময়, অশুভ শক্তিকে বিনাশ করে উদয় হবে শুভ শক্তির এমনটাই প্রত্যাশা সনাতন ধর্মালম্বীদের।

বাঞ্ছারামপুর উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির  সভাপতি মিন্টু রঞ্জন সাহা বলেন  গত বছর উপজেলার ১ টি পৌরসভা ও ৭ টি ইউনিয়নে ৪১ টি পূজা মন্ডপে অনুষ্ঠিত হয়েছিল দুর্গাপূজা। 

তারই ধারাবাহিতায় এ বছর ও পৌর সভায় ৬ টি, উজানচর ইউনিয়নে ৫ টি, দরিয়াদৌলত ৩ টি, ছলিমাবাদ-৩ টি, রুপসদী ৬টি, তেজখালি-২ টি, ফরদাবাদ ইউনিয়নে-১২টি এবং মানিকপুর ইউনিয়নে ৪টি পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন,দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলাম(অব.) এমপি, তালিকা অনুযায়ী ৪১টি পূজা মন্ডপে নগদ ২০ হাজার টাকা করে ৮ লাখ ২০ টাকা অনুদান দিয়েছেন। সরকারি ও পূজা উদযাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা উদযাপন করা হবে।

এছাড়া সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সর্ব বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব দুর্গা পূজাকে ঘিরে উপজেলা প্রশাসন,বাঞ্ছারামপুর পৌর সভা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পূজা উদযাপন কমিটিকে নিয়ে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ সহ শান্তিপূর্ণ ও জাঁকজমক পরিবেশে পূূজা উদযাপনে সার্বিক সহযোগীতা করে যাচ্ছে।

বাঞ্ছারামপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাজু আহমেদ বলেন সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা শান্তিপূর্ন ভাবে সম্পুন্ন করার লক্ষে আইন শৃংখলা বাহিনী সজাগ দৃষ্টি রাখছে। আইন শৃংখলা বাহিনীর পক্ষ থেকে সকল স্হরের  নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দা শমসাদ বেগম বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে এবারের পূজা সরকারী নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভাবে অনুষ্ঠিত হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •