কাদের মির্জার ঈদ উপহারের কোরবানির পশু ফিরিয়ে দিল কোম্পানীগঞ্জ থানা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
ঈদুল আযহা উপলক্ষে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জার পক্ষ থেকে দেওয়া ঈদ উপহারের কোরবানির গরু-ছাগল ফেরত দিয়েছে কোম্পানীগঞ্জ থানা।

গতকাল সোমবার কোম্পানীগঞ্জ থানা থেকে উপহারের দেওয়া ওই গরু-ছাগল ফেরত দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে জানতে সন্ধ্যা ৬টা ১৮ মিনিটে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জার ফোনে কল করা হলে তার এক সহকারি ফোন রিসিভ করে বলেন স্যার এখন বিশ্রামে আছেন। তিনি এখন কথা বলতে পারবেন না।

মঙ্গলবার (২০ জুলাই) বিকেল ৪টায় বিষয়টি নিশ্চিত করেন কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.সাইফুদ্দিন আনোয়ার। তিনি আরও জানান, ঈদুল আযহা উদ্যাপন করতে কোম্পানীগঞ্জ থানাতে মেয়র আব্দুল কাদের মির্জার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে ১টি গরু ও ১টি ছাগল পাঠানো হয়। তবে উপহারের গরু-ছাগল নিতে অপারগতা দেখালে তিনি লোক পাঠিয়ে ঈদ উপহারের গরু-ছাগল ফেরত নেন। তবে এ বিষয়ে বেশি কথা বলতে অনীহা দেখান ওসি।

উল্লেখ্য, গত তিন যুগ ধরে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের স্থানীয় রাজনীতিতে দলমত নির্বিশেষে আব্দুল কাদের মির্জা ছিলেন আইডল। তিনি গত ৭মাসে বিভিন্ন সভা,সমাবেশ, ফেসবুক লাইভে তীর্যক বাক্য বাণে যেমন ব্যাপক আলোচিত সমালোচিত হন, তেমনি হারিয়েছেন পেলেছেন আইডলের তকমা। সর্বশেষ ৪৭ বছরের রাজনীতিতে এখন তিনি পাড়ি দিচ্ছেন সব চেয়ে খারাপ সময়। নিজের আগের একক নেতৃত্বের মসনদ ফিরে পেতে বাড়ি ছেড়ে থাকছেন পৌর ভবনে। ফর্মে ফিরতে ছোট খাটো ইস্যুতেও ক্লান্তিহীন ভাবে চালাচ্ছেন নানা রাজনীতিক ও সামাজিক কর্মকান্ড। কিন্তু সকল অতীতকে ভেঙ্গে দিয়ে কাদের মির্জার শক্ত প্রতিপক্ষ হয়ে দাঁড়িয়েছে উপজেলা আ.লীগের মূল কমিটির নেতৃবৃন্দ। অপরদিকে, গত শুক্রবার (১৬ জুলাই) অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে ঈদুল আযহা উপলক্ষে ত্রাণ বিতরণ করতে গিয়ে এক বৃদ্ধকে ঘুষি মেরে বসেন কাদের মির্জা। অসহায় বৃদ্ধকে ঘুষি মারার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়লে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন কাদের মির্জা। কোম্পানীগঞ্জে আ.লীগের বিবদমান দ্বন্দ্বে এ পর্যন্ত দুইজন নিহত হয়েছেন। এসব ঘটনায় একাধিক মামলাও হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ৩১ মার্চ দল থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়ে ছিলেন কাদের মির্জা। পদত্যাগের ৪৫ দিনের মাথায় ১৬ মে তিনি ফের দলে ফিরে আসেন।