কলাপাড়ায় ‘যৌন হয়রানি প্রতিরোধ কমিটি’র দুইদিন ব্যাপী ওরিয়েন্টেশন

1

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)।। পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় যৌন হয়রানি প্রতিরোধ কমিটির সদস্যদের সাথে দুই দিন ব্যাপী ওরিয়েন্টেশন সম্পন্ন হয়েছে। সোমবার বিকাল ৫ টায়
খেপুপাড়া সরকারি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় মিলনায়তনে ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামের সমাপনীতে সনদ বিতরণ করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মো.শহীদুল হক। এর আগে রবিবার সকাল নয়টায় কনসার্ন উইমেন ফর ফ্যামিলি ডেভেলপমেন্ট (সিডব্লিউএফডি) প্রকল্পের আয়োজনে ২৯ এবং ৩০ আগস্ট ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রাম পরিচালিত হয়। জাতিসংঘ জনসংখ্যা তহবিল (ইউএনএফপিএ) এর সহযোগিতায় একসিলিরেটিং অ্যাকশন টু এন্ড চাইল্ড ম্যারেজ ইন বাংলাদেশ প্রকল্পের অধীনে কলাপাড়া উপজেলার ছয়টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের যৌন হয়রানি প্রতিরোধ কমিটির ২৮ জন সদস্য নিয়ে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো.মোখলেছুর রহমান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার মো.মনিরুজ্জামান খাঁন, খেপুপাড়া সরকারি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক(ভারপ্রাপ্ত) মো.আবদুর রহিম,
পটুয়াখালী সি ডব্লিউ এফ ডি’র টেকনিক্যাল অফিসার প্রশিক্ষক নিপা আক্তার এবং ছয়টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে আসা ২৮ জন প্রতিনিধি।
দুই দিন ব্যাপী ওরিয়েন্টেশন পরিচালনা এবং প্রশিক্ষণ প্রদান করেন পটুয়াখালী সি ডব্লিউ এফ ডি’র টেকনিক্যাল অফিসার কাজী বশির আহমেদ, নিপা আক্তার এবং রেকসোনা আক্তার। বিদ্যালয়ের শিক্ষক ম্যানেজিং কমিটি এবং কমিউনিটি পার্সন মিলে ২৮ জন প্রশিক্ষনার্থী ওরিয়েন্টেশনে অংশ নেয়।

হাজীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ইংরেজি শিক্ষক মো.ফরিদুল ইসলাম আজকের পত্রিকাকে জানান, প্রশিক্ষণে অর্জিত জ্ঞান প্রয়োগের মাধ্যমে আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাতে কোনো ধরণের যৌন হয়রানিমূলক ঘটনা না ঘটে সে ব্যাপারে শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের সচেতন করা যাবে। এছাড়া স্কুল এরিয়ায় শিক্ষার্থীদের মধ্যে যদি যৌন হয়রানি মূলক ঘটনা ঘটে তাহলে কমিটি সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে পারবে। প্রয়োজনে প্রধান শিক্ষক কিংবা ইউপি চেয়ারম্যান সর্বোপরি প্রশাসনকে অবহিত করার মাধ্যমে বিদ্যালয় তথা সমাজ থেকে যৌন হয়রানির মত ব্যধি দূর করা সম্ভব হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •