অবশেষে বিয়ের দাবিতে অবস্থানরত সেই তরুণীকে আটক

246

বরগুনা জেলা প্রতিনিধি:

বরগুনা বিয়ের দাবিতে জামালপুর থেকে বরগুনার বেতাগীতে এসে প্রেমিক মাহমুদুল হাসানের বাড়িতে অবস্থান নেওয়া সেই তরুণীকে আদালতের নির্দেশে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১৩ মে) সকালে তাকে গ্রেফতারের পর আদালতে পাঠানো হয়। বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম বিষয়টি করেছেন।

তিনি জানান, বিয়ের দাবিতে ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া মাহমুদুল হাসানের ভাড়া বাসায় অবস্থান নেওয়া শিখা আক্তার মৌ নামের ওই তরুণীকে আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী শুক্রবার সকালে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এর আগে, গত মঙ্গলবার (১০ মে) বরগুনার আদালতে মাহমুদুল হাসানের বাবা মোশাররফ হোসেন খান কথিত বিয়ের দাবীতে তাদের পরিবারকে অবরুদ্ধ করে অবস্থান নেয়ার অভিযোগ করেন ওই তরুণীর বিরুদ্ধে। অভিযোগ আমলে নিয়ে ওইদিনই বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ প্রদান করেন বরগুনার মূখ্য বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মুহাম্মদ মাহবুব আলম। একইসাথে একসপ্তাহের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিলেরও নির্দেশ দেন ওই বিচারক।

উল্লেখ্য, গত ২৯ এপ্রিল বরগুনার বেতাগী উপজেলার চান্দখালিতে ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া মাহমুদ হাসানের ভাড়া বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অবস্থায় নেয় জামালপুরের তরুণী শিখা আক্তার মৌ। ছেলে ও তার বাবা-মা আত্মগোপনে থাকায় স্থানীয়রা ওই বাড়ির তালা ভেঙে একটি রুমে ঢুকিয়ে দেন ওই তরুণীকে। একপর্যায়ে গত বৃহস্পতিবার (৫ মে) রাতে মাহমুদুল হাসানের বাবা মোশাররফ হোসেন ওই বাড়িতে আসেন এবং ওই তরুণীকে পুত্রবধূ বানাতে তার পুরনো স্বামীকে তালাকের কাগজ ও অবিভাবকদের নিয়ে আসার শর্ত দেন।

এদিকে, গত ২ মে তালা ভেঙে সেই তরুণীকে প্রেমিকের ঘরে ঢুকিয়ে দেয় এলাকাবাসী । সেদিন দুপুরের পর চান্দখালী ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ সোনা মোল্লার উপস্থিতিতে এলাকার অর্ধশত মানুষ তালা ভেঙে তাকে ঘরে ঢুকিয়ে দেন। এরপর থেকে ওই তরুণী সেখানেই অবস্থান করছেন।

বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: শাহ আলম হাওলাদার সকালের খবর ২৪ কে বলেন, আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণে আদালতের নির্দেশ পেয়ে ওই তরুণীকে শুক্রবার সকালে আটক করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।