ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গলা কেটে মধ্যবয়সী নারী রহস্যজনক হত্যা না আত্মহত্যা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় বটি দিয়ে গলা কেটে পারুল আক্তার (৪৫) নামে এক গৃহবধূ রহস্যজনক  আত্মহত্যা করেছে।
বৃহস্পতিবার ২ নভেম্বর সকালে কসবা পৌর এলাকার চড়নাল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
নিহত পারুল আক্তার চড়নাল গ্রামের ইব্রাহিম মিয়ার স্ত্রী। গৃহবধূর স্বামী ইব্রাহীম মিয়া জানান, কয়েক মাস আগে ছোট মেয়েকে বিয়ে দেওয়ার পর থেকে প্রায় সময়ই সে অন্যমনস্ক বা বিকারগ্রস্থ হয়ে আবোল তাবোল কথা বলতো। কিছুক্ষণ ভালো থাকতো আবার কিছুক্ষণ অনমনস্ক হয়ে নিজের মর্জিমাফিক চলতো। এসব সমস্যায় চিকিৎসাও চলছিল। বুধবার তাকে কুমিল্লায় নেওয়া হয়েছিলো চিকিৎসকের কাছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে সবার জন্য নাস্তা তৈরি করে বড় মেয়ের কক্ষে পাঠায়। বড় মেয়ে তার ছোট ভাইকে নিয়ে নাস্তা খাওয়ার সময় রান্না ঘর থেকে গোঙ্গানীর শব্দ শুনা যাচ্ছিল। এসময় রান্নাঘরে গিয়ে দেখে পারুল আক্তারের গলাকাটা দেহ ছটফট করছে। পরে ঘটনাস্থলেই মারা যায় গৃহবধূ পারুল। ঘটনার সময় গৃহবধূর হাতে ছিল বটি।
এলাকার মানুষের নানান গুঞ্জন মৃত্যু ব্যক্তি  গলাকাটাপর নিজে হাতে কিভাবে দাও রেখে মৃত্যুবরণ করে আরো নানান কথা ঘুরপাক  খাচ্ছে বিভিন্ন কথা হচ্ছে ঘটনার মূল  রহস্য পুলিশ উদঘাটন করার জন্য তদন্ত প্রয়োজন বলে মনে করছে এলাকা অনেকেই।
কসবা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহিউদ্দিন জানান, পৌর এলাকার চড়নাল গ্রামে গৃহবধূ পারভীন আক্তার গলা কাটা ঘটনায় লাশ উদ্ধার করে দুপুরে ব্রাহ্মণাড়িয়া সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

শেয়ার করুনঃ

স্বত্ব © ২০২৩ সকালের খবর ২৪