ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ব্রাক্ষনবাড়ীয়া ২ সংসদীয় আসনে প্রতিদ্বন্দ্বীতার জন্য আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ১৩ জন

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ব্রাক্ষনবাড়ীয়া ২ (সরাইল আশুগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন পএ কিনেছেন ১৩ জন। তবে উক্ত ১৩ জনের মধ্যে কার ভাগ্যে জুটবে নৌকার হাল,নাকি জোট মহাজোটের গেরাকলে পড়ে এ আসনে অন্য কোন দল আসবে তা নিয়ে এলাকা এখন সরগরম। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে গ্রামের পল্লীপ্রান্তরে চলছে নির্বাচিতী আলাপ আলোচনা।এখানে উল্লেখ্য যে,এবার বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে তৃনমুল নেতা,সৎ,ত্যাগী ও কম বয়সী প্রার্থীরা দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা বেশী বলে ধারনা করছেন ভোটাররা।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২(সরাইল -আশুগঞ্জ) আসনে
মোট ভোটার সংখ্যা চার লক্ষ দশ হাজার উনআশি। তার মধ্যে সরাইল উপজেলায় মোট ভোটার ২৬৬৬১২ জন। যার মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৪২৩৩৮ ও মহিলা ভোটার ১২৪২৬৬ জন। আশুগঞ্জ উপজেলায় ভোট ভোটার ১৪৩৪৬৭ জন। তার মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ৭৫০৬৯ জন ও মহিলা ভোটার সংখ্যা ৬৮০৩৯ জন।ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২(সরাইল -আশুগঞ্জ) আসন থেকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন তারা হলেনঃ
আশরাফ উদ্দিন মন্ত, মিডিয়া ব্যঔিত্ব এম ডি জালাল মিয়া,সাবেক ছাএলীগ নেতা আব্দুল হান্নান (রতন),এডঃ কামরুজ্জামান আনসারী,আশুগঞ্জ উপজেলা সাবেক চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান, জাপান প্রবাসী আবু শামীম মোহাম্মদ পিয়ার (পলাশ),সকল প্রাথীগন তাদের স্ব- স্ব আস্হা ভাজন ও অনুসারী দলীয় নেতাকমীদের কে নিয়ে তাদের মনোনয়ন পএ সংগ্রহ করেন। তবে মনোনয়ন পএ কেনার সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
এদিকে এই আসনে তৃনমূল বি এন পির মনোনয়ন নিয়েছেন প্রয়াত আলোচিত সংসদ সদস্য উকিল আব্দুল ছাওার ভুইয়ার ছেলে মাইনুল ইসলাম (তুষার)। আওয়ামী লীগ রবিবার(২৬ নভেম্বর) তাদের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করবে।কে জানে শেষ হাসিটা কে হাসে।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) বহুল প্রতিক্ষিত ও আলোচিত সংমদীয় আসনে ইতিপূর্বে দু’বার উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।তার কারন জাতীয় সংসদ থেকে বিএনপি দলীয় এমপিদের পদত্যাগের ফলে ইতোপূর্বে চলতি বছরের ১লা ফেব্রুয়ারিতে উক্ত আসনে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। আসনটির এমপি উকিল আব্দুস সাত্তার ভুইয়ার মৃত্যু জনিত কারণে দ্বিতীয়বারের মতো আসনটি
শূণ্য হয়ে যায়। ফলে এ আসনে তৃতীয়বার গত ৫ নভেম্বর উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।
এছাড়া ২০০৮ সাল থেকে এ আসনে জোট-মহাজোটের বেড়াজাল, বিএনপি দলীয় এমপিদের পদত্যাগের পর দল থেকে পদত্যাগ১ৃ করে বিএনপি এমপি উকিল আব্দুস সাত্তার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে উপ-নির্বাচনে অংশ নেয়া ও আওয়ামী লীগের আনুকুল্যে পূণরায় এমপি নির্বাচিত হওয়া ইত্যাদি নানা কারণে এ আসনটি বেশ আলোচিত।

শেয়ার করুনঃ

স্বত্ব © ২০২৩ সকালের খবর ২৪