ঢাকা, শনিবার, ২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নির্বাচন নিয়ে বিএনপির কিছু বলার থাকলে তা নির্বাচন কমিশনকে বলুকঃ মোজাম্মেল হক

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন,  নির্বা,চনের বিষয়ে বিএনপির কিছু বলার থাকলে ,,,৪,৪ো,  নির্বাচন কমিশনকে বলুক। তাদের বিষয়টি নির্বাচন কমিশন দেখবে  এবং নির্বচন কমিশন তা বিবেচনা করবে।
শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) দুপুরে  ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া উপজেলার পৌরশহরের খড়মপুর গ্রামে  শাহ ছৈয়দ আহমেদ গেছুদারাজ প্রকাশ পীর কল্লা শহীদ (রহঃ)এর মাজার শরীফের জামে মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করেন। নামাজ শেষে  শেষে  মাজার জিয়ারত করার পর  সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক আরো বলেন, ‘বিএনপির শুভবুদ্ধির উদয় হোক এবং সেই সাথে হরতাল- অবরোধের মতো ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড থেকে বিরত হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহন করুক।

বি,এন,পি যদি ধ্বংসাত্মক কাজ ছেড়ে সাংবিধানিক পথে  নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে তাহলে সরকারের পক্ষ থেকে কোনো আপত্তি থাকবে না।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, বি,এন,পি নির্বাচনে এলে তাদের প্রতি আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা থাকবে।

মোজাম্মেল হক আরও বলেন, ‘আপনারা নিশ্চয়ই জানেন, এসপি বলেন ডিসি বলেন সমস্ত কর্মকর্তারা প্রধানমন্ত্রীর অধীনে না, সরকারের অধীনেও না। তারা নির্বাচন কমিশনের অধীনে। কাজেই তাদের যার যে বক্তব্য নির্বাচন কমিশনের কাছে বলতে হবে। সরকারের ব্যক্তিগত কোনো আপত্তি নাই।

তবে তিনি উল্লেখ কনে বলেন, নির্বাচন পেছানোর কোনো সুযোগ নেই । কারণ এই সরকার ২৮ জানুয়ারির পর অবৈধ হয়ে যাবে। কাজেই সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারনে নির্বাচন সঠিক ও নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই হতে হবে। নির্বাচন সম্পূর্ণরূপে নির্বাচন কমিশনের অধীনে হয়। সরকার সেখানে সাপোর্ট দেয়।’

এ সময় অন্যন্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অংগ্যজাই মারমা, কসবা-আখাউড়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মো. দেলোয়ার হোসেন, আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুল ইসলাম, আখাউড়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বাহার মালদার সহ প্রমুখ ব্যক্তিবর্গ।

শেয়ার করুনঃ

স্বত্ব © ২০২৩ সকালের খবর ২৪