ঢাকা, সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নিঃসন্তান দম্প‌ত্তি:স্বামী স্ত্রীর কল‌হের জে‌রে বাচ্চা চু‌রি

নিঃসন্তান দম্প‌ত্তির বিবাহীত জীব‌নে দীর্ঘদিন সন্তান না হওয়ায় স্বামী স্ত্রীর ম‌ধ্যে কল‌হের সুরহা কর‌তে রাজধানীর স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল থে‌কে বাচ্চা চু‌রি ক‌রে‌ছি‌লেন ব‌লে জা‌নি‌য়ে‌ছেন লালবাগ উপ-পু‌লিশ ক‌মিশনার মো.জাফর হো‌সেন। ত‌বে অপহরণকারী ময়না বেগম কোন অপহরন চ‌ক্রের সদস‌্য কিনা এবং তার দেওয়া এই বক্ত‌ব্যের সত‌্যতা যাচাই শে‌ষে তার বিরু‌দ্ধে ব‌্যাবস্থা নেওয়া হ‌বে ব‌লে জানান তি‌নি।

শ‌নিবাার সন্ধায় লালবাগ উপ-পু‌লিশ ক‌মিশনারের কার্যাল‌য়ে এক সংবাদ স‌ন্মেল‌নে তি‌নি এসব জানান।

লালবাগ উপ-পু‌লিশ ক‌মিশনার মো.জাফর হো‌সেন ব‌লেন, মামলার বাদী মোঃ জুনাইদ আহম্মেদ এর নববাজাতক কন্যা জুবায়েদা আক্তার (৩ মাস) ‘কে তার স্ত্রী ও শাশুড়ী ১৯ তারিখ র‌বিবার সকালে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল আলট্রাসনোগ্রাফি করানোর জন্য নিয়ে যায়। সেখা‌নে অজ্ঞাতনামা মহিলা (বোরকা পরিহিত এবং মুখে মাক্স লাগানো) সহ অন্যান্য অজ্ঞাতনামা সহযোগীদের সহায়তায় জুবায়েদা আক্তারকে অপহরণ করে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে বাদীর আবেদনে মামলাটি রুজু হয়।

মামলাটি রুজু হওয়ার পর শিশু ভিকটিম জুবায়েদা আক্তারকে উদ্ধারের জন্য কোতয়ালী থানা পুলিশ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন পত্রিকায় শিশু ভিকটিম জুবায়েদা আক্তার এর ছবি প্রচার করে।

চু‌রির প্রক্রিয়া তু‌লে ধ‌রে তি‌নি জানান, আসামী ময়না বেগম (৩৭) মিটফোর্ড হাসপাতালে আলট্রাসনোগ্রাম কক্ষের পার্শ্বে ওয়েটিং রুমে আলট্রাসনোগ্রাফি টেস্ট রিপোর্ট সংগ্রহের জন বসে ছিলেন। ঐ সময় শিশু ভিকটিম জুবায়েদা আক্তার’কে তার নানী বিউটি বেগম কোলে নিয়ে পাশেই বসে ছিলেন। অপহরণকারী ময়না বেগম নিঃসন্তান হওয়ায় কৌশলে ভিকটিমের নানীর কোল থেকে ভিকটিম বাচ্চাটি নিজের কোলে নিয়ে নেয়। শিশু ভিকটিমের নানী পানি কেনার জন্য দোকানের কাছে গেলে অপহরণকারী ময়না আক্তার তখন তার পিছন পিছন হাটতে থাকে। ভিকটিমের নানী দোকানের পানি কেনার জন্য গেলে অপহরণকারী কৌশলে ভিকটিম জুবায়েদা আক্তারকে অপহরণ করে। প‌রে নৌকায় ক‌রে বুড়ি গঙ্গা নদী পাড় হয়ে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানাধীন চুনকুটিয়া গ্রামে তার স্বামীর বাসায় যায়। পরবর্তীতে অপহরণকারী ঐদিন তার বাবার বাসা খিলগাঁও থানাধীন ত্রিমোহনী এলাকায় অবস্থান করতে থাকে। অপহরণকারী নিঃসন্তান হওয়ায় তার কোলে বাচ্চা দেখে স্থানীয় লোকজন কানা ঘুষা শুরু করলে অপহরণকারী ভীত সন্ত্রস্থ হয়ে পরে। তখন সে নিজেকে বাঁচানোর জন্য তার ভাইয়ের মাধ্যমে পুলিশকে জা‌নি‌য়ে দেয়। পরবর্তীতে কোতয়ালী থানা পুলিশ ভিকটিম জুবায়েদা আক্তার (০৩ মাস) ‘কে উদ্ধার ক‌রে নবজাতক শিশু অপরণকারী ময়না বেগম (৩৭)’ কে গ্রেফতার করা থানায় নিয়ে আসে।

অপহরনকারীকে বক্ত‌ব্যের ববর্ননা তু‌লে ধ‌রে উপ-পু‌লিশ ক‌মিশনার মো.জাফর হো‌সেন ব‌লেন, জিজ্ঞাসাবাদে জানা ewযায় তার বিবাহীত জীবন প্রায় ১৩ বছরের কিন্তু সে নিঃসন্তান। এ জন্য অপহরনকারীর স্বামীর সা‌থে পারিবারিক দন্দ কলোহো লেগেই থাকত। সর্বশেষ তার স্বামীর সাথে অপহর‌নের দি‌নে ঝগড়া ক‌রে মিটফোর্ড হাসপাতালে তার আল্ট্রাসনোগ্রাফি টেস্ট রিপোর্ট সংগ্রহ করতে এসে সু-কৌশলে ভিকিমের নানীর কোল হতে ভিকটিম জুবায়েদা আক্তারকে নিজের কোলে নিয়ে অপহরনকরে পলিয়ে যায়।

ডিআই/এসকে

শেয়ার করুনঃ

স্বত্ব © ২০২৩ সকালের খবর ২৪