ঢাকা, সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নলছিটি মেয়রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থতার কারণ জানতে চেয়ে হাইকোর্টের রুল

ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালকের তদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী নলছিটি পৌরসভার মেয়র আব্দুল ওয়াহেদ খানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থতার কারণ জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্থানীয় সরকার বিভাগের পরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদেশের বিষয়টি বৃহস্পতিবার (১৯ অক্টোবর) রিটকারীর আইনজীবী মোহাম্মদ আজিজুল হক গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. রেজাউল চৌধুরীর দায়ের করা এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১০ সেপ্টেম্বর শুনানি শেষে হাইকোর্টের বিচারপতি বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহ ও বিচারপতি এ কে এম রবিউল হাসানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এরআগে নলছিটি পৌরসভার মেয়র জনাব আ. ওয়াহেদ খানে বিরুদ্ধে ৯ জন কাউন্সিলরের আনিত অনাস্থা প্রস্তাবের বিভিন্ন অভিযোগ স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের পক্ষে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মো. জুয়েল রানা তদন্ত করেন। তদন্ত শেষে তিনি গত ১৩ মার্চ ৭৩ পাতার একটি প্রতিবেদন দেন। তার দেয়া প্রতিবেদন অনুযায়ী উর্ধ্বতন কর্মকতারা মেয়রের বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা না নেয়ায় হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন কাউন্সিলর রেজাউল চৌধুরী।

এবিষয়ে নলছিটি পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. রেজাউল চৌধুরী জানান, ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মো. জুয়েল রানার কাছে অভিযোগ দেওয়া হলে তিনি তদন্ত করে মেয়রের বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ প্রমাণীত পায়। তারপরও কোন পদক্ষেপ না নেওয়া আমরা উচ্চ আদালতে দারস্থ হয়েছি।

এবিষয়ে নলছিটি পৌরসভার মেয়র জনাব আঃ ওয়াহেদ খান জানান, হাইকোর্টে রুল জারির বিষয়টি তার জানা নেই। আমার বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ ভুয়া। তার নামে ভুয়া রিপোর্ট দিছে এবিষয়ে তিনি উকিল নোটিশ দিয়েছে এরপর দুইজন কাউন্সিলর তাদের অভিযোগ প্রত্যাহার করে নিছে।

শেয়ার করুনঃ

স্বত্ব © ২০২৩ সকালের খবর ২৪