ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুড়িগ্রাম- ৩ আসনে কে পাচ্ছেন জাতীয় পার্টির মনোনয়ন

কুড়িগ্রাম-৩ উলিপুর আসনটি জাতীয় পার্টির ঘাটি হিসেবে পরিচিত। তাই এ সংসদীয় আসনটির অত্যন্ত কদর হওয়ায় দলীয় প্রার্থীদের মধ্যে নির্বাচন এলেই শুরু  হয় মনোনয়ন প্রতাশীদের দৌড়-ঝাপ। ইতিপূর্বের নির্বাচন গুলোতে দেখা গেছে, দলীয় নেতাগণ মোটা অংকের টাকা নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতা-নেত্রী কাছে নিয়োগ বাণিজ্য। এ বাণিজ্যে শেষমেশ স্থানীয় নেতা-নেত্রীগণ আম-ছালা দুটোই হারিয়েছেন।
দেখা গেছে, দলীয় কোন্দলের সমাধানে জাতীয় পার্টির প্রনেতা পল্লীবন্ধ হোসাইন মুহাম্মাদ এরশাদ এবং তাঁর ছোট ভাইকে জাতীয় পার্টির ঘাটি হিসেবে চিহ্নিত কুড়িগ্রাম-৩ (উলিপুর) আসনের প্রার্থী করায় জনদুর্ভোগের সৃষ্টি হয় ।
জাতীয় পার্টির ঘাটি হিসেবে চিহ্নিত কুড়িগ্রাম-৩ সংসদীয় আসনের এমপি৷৷৷
 অন্য দলের হেভী ওয়েট প্রার্থী এমপি হতে দল ত্যাগ করে এমপি-মন্ত্রী  নিঃস্বার্থ কর্মী উদীয়মান তরুণ নেতা ইঞ্জিনিয়ার আনিছুর রহমান রতন আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে তৃণমূল নেতা কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে এলাকার হাটবাজার ও গ্রাম গঞ্জের মানুষজনের সাথে মতবিনিময় ,ব্যানার ,ফেস্টুন ও হ্যান্ডবিল হাতে নিয়ে গণসংযোগ ও প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন । উদীয়মান তরুণ এ নেতা জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী এ খবরে সুবিধাবঞ্চিত ঝিমিয়ে পড়া নেতাকর্মীরাসহ উলিপুরবাসী অত্যন্ত খুশি ও উল্লাসিত। ইতিপূর্বে তিনি  দুইবার উলিপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে  চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে সুপরিচিত মুখ হিসাবে স্থানীয় জনগণের মাঝে পরিচিত ও ভালোবাসার  স্থান করে নিয়েছেন।
কুড়িগ্রাম-৩ আসনে ইতিপুর্বে  নির্বাচিত সংসদ সদস্যরা উলিপুরের উন্নয়নে তেমন কোনো উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে পারেননি। নির্বাচিত প্রতিনিধিরা এলাকার উন্নয়নের চেয়ে নিজের আখের গুটিয়ে নিয়েছেন বলে জানান স্থানীয় সচেতন মানুষজন। উলিপুর নির্বাচনী এলাকায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলে স্থানীয় ভালো কোন নেতা না থাকায় এলাকার জনগণ একজন ভালো মানুষের অন্বেষণ করছেন, কিন্তু তিনি যেন স্থানীয় জাতীয় পার্টি থেকেই হন সেটাই উলিপুরবাসীর মনের আশাবাদ। সেই আকাঙ্ক্ষিত স্থানে উলিপুরবাসীর অন্তরে কিছুটা জায়গা করে নিয়েছেন ইঞ্জিনিয়ার আনিছুর রহমান রতন। তিনি উলিপুরের স্থানীয় রাজনীতিতে একটি উদীয়মান এবং তরুণ নেতৃত্ব। দলীয় সুবিধাবঞ্চিত নেতা নুরুজ্জামান সরকার বলেন,এক সময় পল্লীবন্ধু হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদ এর ছোট ভাই মোজাম্মেল হোসেন লালু এ আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে তাকে আর এলাকায় দেখা যায়নি। তাইতো এই এলাকার লোকজন বলেছিলেন” লালু ভোট নিয়ে এই যে গেলু ফিরে আর না আলু” তাই বহিরাগত যেন কাউকে আর মনোনয়ন না পায় এমনই দাবি করেছেন তিনি। ইঞ্জিনিয়ার রতন উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে বেড়াচ্ছেন এবং জাতীয় পার্টির গ্রাম ও মাঠ পর্যায়ে সাংগঠনিক ভিত্তি শক্তিশালী করতে অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন তিনি। উলিপুর এলাকার বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের সভা-সমাবেশ সহ, বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করছেন, এলাকায় তিনি  ব্যাপক গণ সংযোগ শুরু করে দিয়েছেন অত্যন্ত আগ্রহ সহকারে। ইঞ্জিনিয়ার রতন  তাৎক্ষণিকভাবে পূরণ করছেন এলাকাবাসীর ছোটখাটো নানা চাহিদা ও  প্রতিশ্রুতি। ইতিমধ্যেই তার উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের নমুনা,বাস্তব চিত্র উলিপুরবাসী দেখেছেন। তিনি বিভিন্ন দাতা সংস্থা এবং ব্যক্তিগত উদ্যোগে উলিপুরের বিভিন্ন এলাকায় বেশ কিছু অত্যাধুনিক মডেলের মসজিদ নির্মাণ সহ , হাটে-বাজারের মসজিদ সমূহের ওযুখানা নির্মাণ, গরীব জনগণের মধ্যে  ব্যক্তিগত পর্যায়ে নলকূপ স্থাপন, গৃহহীন গরীব জনসাধারণের বাসস্থান , শীতবস্ত্র বিতরণ, মঙ্গা, বন্যা ও বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ ইত্যাদি উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে তিনি  জনগণের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন। গণ যোগাযোগে অন্যান্য নেতৃবৃন্দের চেয়ে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের দ্বারা ইঞ্জিনিয়ার আনিছুর রহমান রতন অনেকখানি এগিয়ে। যাহা কিনা অন্যান্য বৃহত্তম রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে চ্যালেঞ্জের। তার রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের ধারাবাহিকতা অন্যান্য দলের উচ্চ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দকে শংকিত করে তুলেছে। উলিপুরে রাজনীতিতে অপ্রতিহত অপ্রতিরোধ্য ভাবমূর্তি গড়ে তুলতে সমর্থ হয়েছেন। অবহেলিত উলিপুরের উন্নয়ন, জনসেবা ও কল্যাণ ধর্মী কর্মকান্ডে উৎসাহী উদীয়মান এই তরুণ রাজনীতিবিদ আগামীতে উলিপুরের জনগণের নিরক্ষরতা, দারিদ্র্য ও সন্ত্রাসমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ে তিনি উলিপুরবাসীর সহযোগিতা কামনা করছেন এবং আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশী। ইঞ্জিনিয়ার রতনকে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন দিলে জাতীয় পার্টির ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত কুড়িগ্রাম – ৩ আসনটি পুনরুদ্ধার হবে বলে স্থানীয় লাঙ্গল প্রেমী মানুষজনসহ নেতাকর্মীরা প্রত্যাশা করছেন।

শেয়ার করুনঃ

স্বত্ব © ২০২৩ সকালের খবর ২৪