হাওর পারে নেই ঈদের আমেজ

রোকন তাহিরপুর উপজেলা সংবাদদাতা: করোনার প্রাদুর্ভাব ও হাওরে পর্যাপ্ত মাছ না থাকায় কর্মহীন সুনামগঞ্জের তাহিরপুর হাওরবাসীর কয়েক হাজার শ্রমজীবী ও মৎস্যজীবী পরিবারের নেই ঈদুল আযহার উৎসাহ উদ্দীপনা। আছে শুধু নিজের ও সন্তানদের নতুন কাপড় কিনে দিতে না পারার হতাশা ও বুকভরা দীর্ঘশ্বাস। ফলে হাওরপারের মানুষগুলোর ঈদের সব আনন্দ চোখের জল হয়ে যেন হাওরের পানিতেই মিশে একাকার হয়েছে।ঈদকে কেন্দ্র করে হাওরপারের প্রতিটি গ্রামে যেখানে থাকত সাজ সাজ রব সেখানে আজ কেবলই শূন্যতা।ঈদের আনন্দ তো দূরের কথা যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন দ্বীপ সাদৃশ্য ছোট-ছোট গ্রামগুলোতে টাকার অভাবে অনেকেই প্রয়োজনীয় বাজার-সদাই করতেও পারছেনা এমনটাই দেখা গেছে উপজেলার হাওর কেন্দ্রিক শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের জয়পুর,গোলাবাড়ি,ছিলানী তাহিরপুর, মুজরাই,মন্দিয়াতা, সহ কয়েকটি গ্রাম ঘুরে।উপজেলার হাওর কেন্দ্রিক গ্রামগুলো বর্ষার এই ছয়মাস বেকার থাকে, এই সময়ে হাওরে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করা মানুষগুলো মাছ না পাওয়ায় অসহায় বেকার সময় পার করছে।কেউ বা আবার জীবিকার তাগিতে শহর মুখি হয়েছে।হাওর পারের জয়পুর গ্রামের মৎস্যজীবী বুলবুল ইসলাম এর সাথে কথা হলে তিনি বলেন আমি মৎস্যজীবী, মাছের উপর আমার পরিবারের একমাত্র জীবিকার উৎস্য, কিন্তু হাওরে মাছ না থাকায়,জীবিকার তাগিতে ছেলে-মেয়ে ঢাকায় আছে গার্মেন্টসে, শ্রমিকের চাকরি করে কিছু টাকা পাঠায় এ নিয়ে কোন ভাবে বেছে আছি।