ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

দিনাজপুর ৬ আসনে আ’লীগের প্রার্থী একাধিক, জামায়াত বিএনপি’র একক

দিনাজপুর-৬ আসনে আওয়ামী লীগের র্প্রাথী একাধিক, জামায়াত বিএনপির একক। দিনাজপুরে ৬ আসন বিরামপুর, নবাবগঞ্জ হাকিমপুর ও ঘোড়াঘাট নিয়ে গঠিত। এ চারটি উপজেলার ২৩
ইউনিয়ন ও ৩টি পৌরসভা নিয়ে গঠিত। এ আসন থেকে জামায়াত দুবার সংসদ সদস্য র্নিবাচিত হলেও বিএনপির কোন র্প্রাথী এখন র্পযন্ত বিজয়ী হতে পারেনি।তবে আওয়ামী লীগ ৫ বার এ.আসনটি দখল.করেছে। এখনও আওয়ামী লীগের দখলে।
জামায়াত সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী হলেও র্নিবাচন কমিশনে
নিবন্ধন না থাকায় ভোটের রাজনীতিতে আওয়ামী লীগের অবস্থান ভালো। তবে নিরপেক্ষ র্নিবাচন হলে বিএনপির নেতার্কমীরা মনে করেন এবার জয়লাভে তারাও আশাবাদী। নব্বইয়ের রাজনৈতিক পট পরির্বতনের পর এ আসনে ১৯৯১ সালে জামায়াতের আজিজুর রহমান চৌধুরী.র্নিবাচিত হন। ১৯৯৬ সালে র্নিবাচিত হন আওয়ামী লীগের মোস্তাফিজুর রহমান ফিজু, ২০০১ সালে জামায়াত, ২০০৮ সালে মোস্তাফিজুর রহমান ফিজুর পর ২০১৪ ও ২০১৮ সালের দুটি র্নিবাচনে আওয়ামী লীগ র্প্রাথী শিবলি সাদিক র্নিবাচিত হন।এদিকে জাতীয় পাটির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকায় রয়েছেন আওয়ামী লীগের র্বতমান এমপি শিবলী সাদিকের চাচা, জাপার কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা জাতীয় র্পাটির সভাপতি এবং র্বতমান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন। আগামী র্নিবাচনে চাচা কিংবা ভাতিজা যে কেউ একজন প্রার্থী হলে অপর জন ছাড় দিতে পারে বলে জানা গেছে।
তবে মহাজোটের আরেক শরিক দল ন্যাপ-এর কেন্দ্রীয় মহাসচিব ও সাবেক এমপি কাজী লু ফর রহমান এ আসনে মহাজোটের সম্ভাব্য র্প্রাথী হতে চাইবেন বলে তার অনুসারীরা জানান ঘোড়াঘাট,হাকিমপুর,বিরামপুর ও নবাবগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত দিনাজপুর-৬আসন। এই আসনটি.র্দীঘদিন থেকেই বিএনপি-জামায়াতের আসন হিসেবে পরিচিত।তবে গত ২০০৮সালের র্নিবাচনে জয়লাভের মাধ্যমে এখনও র্পযন্ত আসনটি নিজেদের দখলে রেখেছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ।দ্বাদশ জাতীয় সংসদ র্নিবাচনকে সামনে রেখে সরব হয়ে উঠেছে বিএনপি ও জামায়াত।মনোনয়ন প্রত্যাশী র্প্রাথীর পক্ষে বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচারণা চালাচ্ছেন নেতার্কমীরা।
দিনাজপুর ৬আসনটি থেকে এখন র্পযন্ত আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশীর তালিকায় ৮ জনের নাম শোনা যাচ্ছে।তারা হচ্ছেন-র্বতমান সংসদ সদস্য শিবলীসাদিক জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলতাফুজ্জামান মিতা, সাবেক সংসদ সদস্য ড. আজিজুল হক চৌধুরী, নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান,ঘোড়াঘাট উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রাফে খন্দকার শাহানসা, বিরামপুর উপজেলা
আওয়ামীলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মণ্ডল এবং ভারপাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ কবীর।
এখনও র্পযন্ত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, মতবিনিময় সভা, র্কমী সমাবেশ ও বিভিন্ন ভাবে প্রচারণায় এগিয়ে আছেন র্বতমান সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক। ফেসবুক,পোস্টার ও ফেস্টুনে দোয়া, সর্মথন চেয়েছেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলতাফুজ্জামান মিতা, রহমান,ঘোড়াঘাট উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রাফে শাহানসা, বিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান ও নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান।.র্বতমান সংসদ সদস্য ও নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শিবলী সাদিক বলেন, আমি
আওয়ামীলীগ পরিবারের সন্তান। আমার বাবা মরহুম মোস্তাফিজুর রহমান এই আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন।
বঙ্গবন্ধুকন্যা, আওয়ামীলীগের দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে আমি জাতীয় সংসদ র্নিবাচিত হয়েছি। আমি শত ভাগ আশাবাদী আগামী জাতীয় সংসদ র্নিবাচনে দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা নৌকার মাঝি হিসেবে এই আসনে আমাকেই মনোনীত করবেন! এমপি শিবলী সাদিক আরো বলেন,চার চার বার সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতা নিয়ে চারটি উপজেলায় রাস্তাঘাট ব্রীজ কালভাট স্কুল কলেজের র্বিডিংসহ ব্যাপক উন্নয়ন মুলক কাজ হয়েছে। এবং চারটি উপজেলার ছাত্র সমাজ যুব
সমাজ থেকে শুরুকরে র্সব স্থরের মানুষ আমার সাথে আছে।
দিনাজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলতাফুজ্জামান মিতা বলেন,আসন্ন দ্বাদশ র্নিবাচনকে ঘিরে দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার র্নিদেশনা মোতাবেক দলের দিক থেকে আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি আছে।কোনো কোনো উপজেলায় দলীয়মান-অভিমান আছে। তবে নৌকা প্রতীক যে পাবে র্নিবাচন মাঠে তার পক্ষে কাজ করার কোনো বিকল্প নেই এবং কেউ দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে যাবেনা আশা রাখছি।সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক র্কমকান্ড বিবেচনায় দিনাজপুরের সব কয়টি আসনেই
আওয়ামীলীগ মনোনীত র্প্রাথী জয়লাভ করবে ইনশাআল্লাহ আশা রাখছি। এই আসেন নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক সংসদ সদস্য ড. আজিজুলহক চৌধুরী বলেন, ২০০৮ সালে মহাজোটের সঙ্গে র্নিবাচন করে আওয়ামীলীগের এই আসনটি পুনরুদ্ধার করেছি।
নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী বিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মিজানুররহমান বলেন, আমিব বঙ্গবন্ধুর আর্দশের রাজনীতি করি।আমি র্দীঘদিন থেকে এই উপজেলার সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছি। নৌকার মনোনয়ন র্প্রাথী হিসেবে আমি আশাবাদী।
নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণসম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান। তবে আগামী জাতীয় সংসদ র্নিবাচনে এই আসনে নৌকার মনোনয়ন
প্রত্যাশী হিসেবে দোয়া ও সর্মথন চেয়ে ইতি মধ্যে পোস্টার, ফেস্টুন তৈরি করে চার উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় টাঙিয়ে দিয়েছেন তার সর্মথকরা।
আগামী জাতীয় সংসদ র্নিবাচনে এই আসনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে দোয়া ও সর্মথন চেয়েয়েছেন, রহমান,ঘোড়াঘাট উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রাফে খন্দকার শাহানসা,তিনি ইতি মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, মতবিনিময় সভা, র্কমী সমাবেশ ও বিভিন্ন ভাবে প্রচারণা, পোস্টার, ফেস্টুন তৈরি করে চার উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় টাঙিয়ে দিয়েছেন তার সর্মথকরা। এই আসনটি থেকে কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এবং সাবেক প্রধান মন্ত্রী খালেদা জিয়ার ব্যক্তি গত চিকি সক ডা. এজেডএম জাহিদ হাসান এই আসন থেকে মনোনয়ন পাবেন বলে মনে করছেন
বিএনপির নেতা র্কমীরা ।তার পক্ষে মাঠ র্পযায়ে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে স্থানীয় নেতারা। জামায়াতের র্প্রাথী আজিজুর রহমান চৌধুরী ১৯৯১ সালে এককভাবে র্নিবাচন করে বিজয়ী হন। তিনি ২০০১ সালেও চারদলীয় জোটের এমপি র্নিবাচিত হন। ২০০৮ সালে তিনি মারা যান। এরপর নবম সংসদ র্নিবাচনে জয়লাভ করেন আওয়ামী লীগের ড. আজিজুল হক চৌধুরী। ওই সময়জামায়াতের র্প্রাথী ছিলেন মাওলানা আনোয়ারুল ইসলাম। দিনাজপুর (দক্ষিণ) সাংগঠনিক জেলা জামায়াতের আমির এবং সম্ভাব্য র্প্রাথী আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, জোট ভিত্তিক র্নিবাচন বিষয়টি পরর্বতীতে কেন্দ্রীয় কমিটি সিদ্ধান্ত নেবেন।র্বতমান সরকারের অধীনে র্নিবাচনের কোনো প্রশ্নই আসেনা।এই আসনের ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত হাতপাখা প্রতীকের র্প্রাথী নূরে আলম সিদ্দিকী
বলেন, দলীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক গত সংসদ র্নিবাচনে এ আসনে আমি প্রতি দ্বন্দ্বিতা করেছি। আগামী জাতীয় সংসদ র্নিবাচন ঘিরে আমাদের সব প্রস্তুতি নেওয়া আছে। বাকিটা আমাদের দলের সিদ্ধান্ত মোতাবেক হবে।

শেয়ার করুনঃ

স্বত্ব © ২০২৩ সকালের খবর ২৪